ছুরি হাতে নিয়ে যুবক ঢুকে পড়ল বিষ্ণুপুর পুরসভার চেয়ারম্যানের ঘরে

মৃন্ময় পান, বাঁকুড়া : প্রতিদিনের মতোই অফিসঘরে বসে এলাকার মানুষদের সঙ্গে কথা  বলছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও বিষ্ণুপুর পুরসভার চেয়ারম্যান শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী। আচমকাই এক যুবক ছুরি নিয়ে তাঁর চেম্বারে ঢুকে পরে বলে অভিযোগ। কোনওমতে তাকে পাকড়াও করে পুলিশের হাতে তুলে দেন ঘরে উপস্থিত মানুষজন।

পুলিশসূত্রে জানা গিয়েছে, প্রতিদিনের মতোই সোমবার রাতেও বিষ্ণুপুরে নিজের বাড়ির অফিস ঘরে বসে এলাকার মানুষের সঙ্গে কথা বলছিলেন শ্যামাপ্রসাদবাবু। সেই সময় মিলন দাস নামে এক যুবক সরাসরি অফিসঘরে ঢুকে সবাইকে সরিয়ে তাঁর কাছে পৌঁছোনোর চেষ্টা করেন। শ্যামাপ্রসাদবাবুর গৃহরক্ষীর সন্দেহ হওয়ায় তিনি ওই যুবককে ধরে ফেলেন। এরপরেই ওই যুবকের প্যান্টের পিছন থেকে লোহার পাইপের ভিতরে থাকা একটি ধারালো ছুরি উদ্ধার হয়। শ্যামাপ্রসাদবাবুকে খুন করার জন্যই সে এসেছিল বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ ঐ যুবককে আটক করেছে। ওই যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শ্যামাপ্রসাদবাবু জানান, এই ঘটনায় তিনি আতঙ্কিত। তাঁর কথায়, “৩২ বছরের রাজনৈতিক জীবনে এমন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি কখনও হইনি। রাজ্যের মন্ত্রী থাকাকালীনও দেহরক্ষী ছাড়াই নিজে স্কুটি চালিয়ে শহরে ঘুরেছি।” ঘটনার পিছনে বিজেপির হাত থাকতে পারে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি। তবে পুলিশের তদন্তে তিনি আস্থা রাখছেন বলে জানিয়েছেন। বিজেপির পক্ষ থেকে অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি স্বপন ঘোষ বলেন, “আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাসী একটি অহিংস রাজনৈতিক দল। অস্ত্র নিয়ে হামলা চালানোর মতো কাজ আমাদের নীতির বিরুদ্ধে। আমাদের কর্মী সমর্থকরা কোনওভাবেই এমন কাজ করবে না।”

রাজ্যে পালাবদলের পর ২০১১ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত রাজ্যের মন্ত্রী ছিলেন শ্যামাপ্রসাদবাবু। এছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে সামলাচ্ছেন বিষ্ণুপুর পুরসভার চেয়ারম্যানের দায়িত্ব। তাঁর বাড়িতে অস্ত্র নিয়ে ঢুকে পড়ার ঘটনায় শহরে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More