এই এগারোটি ছবি তোলার সময় চিত্রগ্রাহকরা ভাবেননি এগুলি কালজয়ী হবে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ক্যামেরা কেবলমাত্র আমাদের দৈনন্দিন জীবনের আনন্দমুখর মুহূর্তগুলিকে ধরে রাখে না। ধরে রাখে মানবসভ্যতার ইতিহাসকেও। অনেক অচেনা অজানা চিত্রগ্রাহক ছবি তোলার সময় ভাবতেই পারেননি যে তাঁদের তোলা ছবিগুলি এক সময় মানব সমাজে কালজয়ী হিসেবে গণ্য হবে। এমনকি বেশিরভাগ চিত্রগ্রাহক সেই সংবাদ তাঁদের জীবদ্দশায় জেনেও যেতে পারেননি। আজ আপনাদের সামনে তুলে ধরা হচ্ছে সেরকমই এগারোটি কালজয়ী ছবি।

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার মধ্যবর্তী সীমান্তে অবস্থিত নায়াগ্রা জলপ্রপাতের ছবি। শীতকালে জমে যাওয়া নায়গ্রা জলপ্রপাতে ঘুরে বেড়াচ্ছেন উৎসাহী পর্যটকরা। এই ছবিটি তোলা হয়েছিল ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষের দিকে।

এই ছবিটি ১৯২১ সালে আমেরিকায় তোলা হয়েছিল। হার্লে-ডেভিডসন মোটর সাইকেলের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে খাঁচা।  খাঁচার ভেতর টুলে বসে আছেন অপরাধী। পুলিশ অফিসার এভাবেই আদালতে নিয়ে চলেছেন অপরাধীকে।  

শর্ট প্যান্ট পরা হিটলারের এই ছবিটি বিংশ শতাব্দীর তিরিশের দশকে তোলা। ছবিটি তোলার পর, প্রিন্ট করে হিটলারকে দেখানো হয়েছিল। কিন্তু হিটলার নিজের এই ছবিটিকে নিজেই নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিলেন। এই ছবিটিতে নাকি তাঁর গরিমাকে ছোট করে দেখানো হয়েছে। মিত্রপক্ষের সেনারা বার্লিনের একটি ভাঙা বাড়ির ভেতর থেকে ছবিটি খুঁজে পান। হয়ত সেটিই ছিল চিত্রগ্রাহকের বাড়ি।

ছবিটি ১৯৪৫ সালের ১৩ এপ্রিল তোলা। হলোকাস্ট ট্রেন বোঝাই করে ইহুদিদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল কনসেনট্রেশন ক্যাম্পে। মাঝপথে খবর এসেছিল হিটলারের পতন আসন্ন। ট্রেন ফেলে পালিয়েছিল নাৎসি সেনারা। নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে মুক্তি পেয়ে শিশুর হাত ধরে পালাচ্ছেন ইহুদি মা।

১৯৫০ সালের ২৯ জুলাই। নাসার নতুন লঞ্চ প্যাড কেপ কার্নিভাল থেকে নিক্ষিপ্ত হওয়া প্রথম রকেট বাম্পার-সেভেন  উড়ে যাচ্ছে মহাকাশে। রকেটটি যাচ্ছে বায়ুমণ্ডলের ওপরের স্তর  নিয়ে গবেষণা করতে। দুইভাগে বিভক্ত হওয়ার পর রকেটের ওপরের অংশটি পৌঁছে গিয়েছিল ভূপৃষ্ঠের আড়াইশো মাইল ওপরে।

ছবিটি ১৯৭৪ সালের। জন্ম থেকেই বধির ,পাঁচ বছরের হ্যারল্ড হুইটল শ্রবণযন্ত্রের সাহায্যে জীবনের প্রথম শব্দটি শুনতে পেয়েছিল। জ্যাক ব্র্যাডলের ক্যামেরায় ধরা পড়েছিল জীবনের প্রথম শব্দটি শোনার সময় বালকটির মুখের অভিব্যক্তি।

ভ্লাদিমির লেনিনের শেষ ছবি। ১৯২৩ সালে তোলা। এই ছবিটি তোলার আগে তাঁর তিনবার স্ট্রোক হয়ে গিয়েছিল। তাই লেনিন তখন কথা বলতে পারতেন না। ছবিতে লেনিনের পাশে তাঁর বোন ও চিকিৎসক।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More