মজুত ভ্যাকসিনে চলবে আর ২দিন, অন্ততঃ ৩০ লাখ ডোজ এখনই পাঠান, মোদীকে চিঠি রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ হু হু করে ছড়ানোর মধ্যেই চলছে ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচি। তবে এর মধ্যেই  বেশ  কয়েকটি রাজ্যে ভ্যাকসিনের ঘাটতি দেখা দিয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে। এ নিয়ে আবার কেন্দ্র-রাজ্য চাপানউতোরও চলছে। এবার রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখে অবিলম্বে অন্ততঃ ৩০ লক্ষ ভ্যাকসিনের ডোজের বন্দোবস্ত করতে বলেছেন। চিঠিতে তিনি রাজ্যের ভাঁড়ারে মজুত ভ্যাকসিন আগামী দুদিনেই শেষ হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা হয় গেহলতের। তারপরই তাঁকে চিঠি লেখেন রাজস্থানের কংগ্রেস সরকারের মুখ্যমন্ত্রী। জানান, প্রতিদিন রাজ্য সরকার ৫ লাখ লোককে ভ্যাকসিন দেওয়ার টার্গেট স্থির  করেছে এবং ১৬ জানুয়ারি থেকে ৭ এপ্রিলের মধ্যে ৮৬ লাখ ৮৯ হাজার ৭৭০ জনকে ভ্যাকসিন দিয়েছে।  গেহলত বলেছেন, আমরা উপভোক্তাদের জড়ো  করে,  সহযোগিতামুখী দৃষ্টিভঙ্গির  মাধ্যমে ইতিমধ্যেই ভ্যাকসিন প্রদানে গতি বাড়িয়ে দৈনিক ৫ লাখ লোককে টিকা দেওয়ার  সিদ্ধান্ত নিয়েছি। রাজস্থানে এখন মজুত ভ্যাকসিনে পরের দুদিন চলবে। তাই আবেদন করছি, অন্তত আরও ৩০ লাখ ডোজ পাঠানো হোক অবিলম্বে, যাতে যে গতি এসেছে, তা ধরে রাখা যায় এবং সর্বোচ্চসংখ্যক যোগ্য উপভোক্তাকে যত আগে সম্ভব ভ্যাকসিন দেওয়া সম্ভব হয়।

কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে আমাদের প্রয়াসে কোনওরকম ফাঁক থাকবে না, আপনাকে আশ্বস্ত করছি, মোদীকে বলেছেন গেহলত।

রাজস্থান ছাড়াও আরও অন্তত ৬টি রাজ্য-মহারাষ্ট্র, ছত্তিশগড়, হরিয়ানা, অন্ধ্রপ্রদেশ, ওড়িষা ও তেলঙ্গানায় করোনা ভ্যাকসিনের ঘাটতির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। সব  রাজ্যই কেন্দ্রকে তা জানিয়েছে। শুক্রবার মুম্বইয়ের মেয়র কিশোরী পেডনেকর জানান, ভ্যাকসিন ফুরিয়ে যাওয়ায় বেশ কয়েকটি কেন্দ্র বন্ধ করে লোকজনকে ফিরিয়ে দিতে হয়েছে। সাতারা, সাঙ্গলি, পাভেলেও সরবরাহ বন্ধ হওয়ায় ভ্যাকসিন কেন্দ্র বন্ধ করা হয়েছে। মজুত, সরবরাহ ঠিকঠাক না হলে পরের চার-পাঁচদিন ভ্যাকসিন দেওয়া বন্ধ রাখতে হতে পারে বলে মহারাষ্ট্র সরকার হুঁশিয়ারি দিয়েছে গতকালই। ৭০০ কেন্দ্র বন্ধ করে দিয়েছে ওড়িষা সরকারও। যদিও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধনের দাবি, দেশে কোথাও কোনও ভ্যাকসিনের ঘাটতি নেই। যে রাজ্যগুলি ঘাটতির কথা বলছে,  তারা অহেতুক ভয় ছড়াচ্ছে বলে দাবি করে তিনি বলেছেন, দেশে ৪ কোটি ৩ লাখের বেশি শট মজুত আছে বা ডেলিভারির স্তরে রয়েছে।

 

 

 

 

 

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More