নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ, সিইও অফিস থেকে ৩ অফিসারকে সরানো হচ্ছে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজ্যে চিফ ইলেকশন অফিসারের দফতরে একাধিক আমলাকে নিয়ে বিরোধীরা আপত্তির কথা জানাচ্ছিলেন নির্বাচন কমিশনকে।

সূত্রের মতে, ডেপুটি কমিশনার সুদীপ জৈনও বাংলায় এসে এ ব্যাপারে নিরপেক্ষ ভাবে পর্যালোচনা করেছেন। তার পরই সিইও দফতর থেকে তিন অফিসারকে সরিয়ে বিকল্প নাম পাঠানোর নির্দেশ দিল নির্বাচন কমিশন। ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার আগেই কমিশনের এহেন পদক্ষেপ একপ্রকার বিরল।

একুশের ভোটে কমিশন যে খুবই কঠোর অবস্থান নিতে পারে সেই সম্ভাবনার কথা আগেই শোনা যাচ্ছিল। কেন্দ্রে এখন শাসক দল বিজেপি। বাংলায় তারাই এখন সব থেকে শক্তিশালী বিরোধী দল। অনেকের মতে, অতীতেও কাকতালীয় ভাবে এমন ঘটনা ঘটেছে। ১১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে বাংলায় কংগ্রেস ও তৃণমূলের জোট ছিল। কেন্দ্রে তখন ইউপিএ সরকার। তখনও কমিশনকে খুব কঠোর ভূমিকা পালন করতে দেখা গিয়েছিল।

সূত্রের খবর, যে তিন অফিসারকে বদলি করতে বলা হয়েছে তাঁদের মধ্যে একজন হলে শৈবাল বর্মন। তিনি সাধারণত দেখতেন আদর্শ আচরণবিধি ঠিকঠাক পালিত হচ্ছে কিনা। দ্বিতীয় জন হলেন, অনামিকা মজুমদার। তাঁর দায়িত্বে ছিল ইভিএমের দেখভালের বিষয়টি এবং ভোট কর্মীদের প্রশিক্ষণ। তৃতীয় অফিসার অমিতজ্যোতি ভট্টাচার্য মিডিয়া সেল এবং ভোটের প্রচার সংক্রান্ত কাজের দায়িত্বে ছিলেন।

জানা গিয়েছে, এই তিন অফিসারকে বদলির জন্য দিল্লি নির্বাচন কমিশন থেকে সিইও অফিস ও রাজ্য সরকারকে জানানো হয়েছিল। মডেল কোড অফ কন্ডাক্ট চালু হওয়ার আগে এই সিদ্ধান্ত নজিরবিহীন বলছেন অফিসারদের বড় অংশ।

সূত্রের খবর, ওই অফিসারের পরিবর্তে বিকল্প হিসাবে ন’জন অফিসারের নাম পাঠানো হয়েছে দিল্লিতে। নির্বাচন কমিশন সেখান থেকে তিনজনের নাম চূড়ান্ত করবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More