স্তন ক্যানসার নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে টপলেস সেরেনা, ভিডিও আলোড়ন তুলল সোশ্যাল মিডিয়ায়

দ্য ওয়াল ব্যুরো: স্তন ক্যানসার নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে টপলেস হলেন টেনিস সম্রাজ্ঞী সেরেনা উইলিয়ামস। বিশ্বের সব মহিলাদের মধ্যে স্তন ক্যানসারের ভয়াবহতা তুলে ধরা এবং সচেতনতার প্রসারই ছিল এর উদ্দেশ্য। আর সেই কারণেই একটি মিউজিক ভিডিওতে টপলেস হয়ে গান গাইতে দেখা গেল সেরেনা। এই ভিডিও আলোড়ন তুলল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

নিজের ইনস্টাগ্রাম পেজে এই ভিডিও শেয়ার করেছেন সেরেনাই। দু’হাতে স্তন আগলে ধরে তাঁর কণ্ঠে ফুটে উঠল ‘আই টাচ মাইসেল্ফ’। দৃপ্ত কণ্ঠে, আত্মবিশ্বাসী সেরেনার বার্তা প্রশংসাও পেয়েছে নানা মহলে।

অক্টোবর মাসটা গোটা বিশ্বেই পালিত হয় স্তুন ক্যানসার সচেতনতা মাস হিসেবে। সেরেনার কথায়, “স্তন ক্যানসার নিয়ে সচেতন থাকা প্রয়োজন। মহিলারা যাতে নিজের শরীরের ব্যাপারের সতর্ক থাকতে পারেন, সেটাই এই ভিডিওর উদ্দেশ্য।”

View this post on Instagram

This Breast Cancer Awareness Month I’ve recorded a version of The Divinyls global hit “I Touch Myself” to remind women to self-check regularly. _ Yes, this put me out of my comfort zone, but I wanted to do it because it’s an issue that affects all women of all colors, all around the world. Early detection is key – it saves so many lives. I just hope this helps to remind women of that. _ The music video is part of the I Touch Myself Project which was created in honor of celebrated diva, Chrissy Amphlett, who passed away from breast cancer, and who gave us her hit song to remind women to put their health first. The project is proudly supported by @BerleiAus for Breast Cancer Network Australia. _ Visit the link in my bio to find out more. #ITouchMyselfProject #BerleiAus #BCNA #DoItForYourself

A post shared by Serena Williams (@serenawilliams) on

ভিডিওটতে নয়ের দশকের জনপ্রিয় গান ‘আই টাচ মাইসেল্ফ’ গেয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী টেনিস তারকা।সেরেনা যে গান গেয়েছেন, সেটা গেয়েছিলেন ‘ডিভিনাইলস’-র গায়িকা ক্রিসি অ্যাম্পলেট। যিনি ২০১৩ সালে ৫৩ বছর বয়সে স্তন ক্যানসারেই প্রয়াত হন।

তবে, গোটা বিশ্বের সামনে টপলেস অবস্থায় গান গাওয়াটা কতটা সহজ ছিল সেরেনার কাছে? টেনিস সম্রাজ্ঞীর কথায়, জার্নিটা মোটেও সহজ ছিল না, তবে উদ্দেশ্যটা যেহেতু বিশ্ব কল্যাণের স্বার্থে তাই এই পিছপা হননি ২৩ বার গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী। তাঁর কথায়, “হ্যাঁ, এটা আমার কমফোর্ট জোনের বাইরের ব্যাপার। তবে এটা আমি করতে চেয়েছিলাম। কারণ এটা এমন ইস্যু, যা বর্ণ নির্বিশেষে বিশ্বজুড়ে সমস্ত মহিলাদের কাছে সমস্যা। দ্রুত এটা ধরা পড়া জরুরি। তা হলে অনেক প্রাণ বাঁচবে। আশা করছি, এই ভিডিয়ো মহিলাদের তা মনে করাবে।”

এই মুহূর্তে লক্ষাধিক ভিউ হয়েছে ভিডিওটি। সেরেনার ফলোয়ারদের অনেকেই আপ্লুত এই অভিনব উদ্যোগ দেখে। এক ভিউয়ার লিখেছেন, “অভূতপূর্ব সেরেনা। অসামান্য বার্তা এবং তোমার গানের গলাও খুব সুন্দর।” অন্য একজন লিখেছেন, “এই বার্তাটা খুবই শক্তিশালী। যেটা জনমানসে ছাপ ফেলবে।”

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More