কুম্ভস্নানে ২০০০ জন করোনা পজিটিভের মধ্যে ৩০ সাধু, মুখ্যমন্ত্রী জানালেন, মেলা চলবে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অতিমারীর দাপটে ধুঁকছে গোটা দেশ। দ্বিতীয় দফার করোনা সংক্রমনের ঢেউয়ে এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ২লাখ। তবু সংক্রমনের ভয়কে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই এরই মধ্যে কুম্ভমেলায় ‘সাহি স্নান’ সারলেন ৪৯লাখ পুণ্যার্থী।
সূত্রের খবর, গত ৫ দিনে প্রায়, ২০০০ জন পুণ্যার্থী করোনা পজিটিভ হয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছেন ৩০ জন সাধুও, যাঁরা সর্ব ভারতীয় আখড়া পরিষদের সদস্য।

গত ১২ই এবং ১৪ই এপ্রিল হরিদ্বারে গঙ্গা স্নান করেছেন প্রায় ১৩টি আখড়ার সাধু। সর্ব ভারতীয় আখড়া পরিষদের নেতা মাহান্ত নরেন্দ্র গিরি স্নানের পরই করোনা পজিটিভ হন। তাঁকে ঋষিকেশের এইমস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জানা যায়, কারও মুখেই ছিল না মাস্ক। গায়ে গায়ে ঘেঁষে জলের মধ্যে দাঁড়িয়েছিলেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। কোভিড সতর্কতা পালনের ক্ষেত্রে তাঁদের মধ্যে কোনও হেলদোল দেখা যায়নি। নিরঞ্জনী আখড়ার সেক্রেটারি রবীন্দ্র পুরি জানান, আখড়ার অনেকের মধ্যেই স্নানের পর করোনার লক্ষণ দেখা দিয়েছে।

মধ্যপ্রদেশের আরেকজন সাধু স্বামী কপিল দেব করোনার চিকিৎসা চলাকালীনই এদিন মারা যান দেরাদুনের একটি হাসপাতালে।

এবছর কুম্ভমেলার আয়োজন করলে ব্যাপক হারে সংক্রমণ দেখা দেবে, এমনটাই জানিয়েছিলেন চিকিৎসক থেকে শুরু করে বিরোধী দলনেতারা সকলেই। বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও কুম্ভমেলা কেন আয়োজিত হল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন রাজনীতিকরা।

কুম্ভমেলায় ৫ দিনের মধ্যে এতখানি সংক্রমণ দেখার পরও কর্তৃপক্ষের জবাব, মেলা যেমন চলার কথা তেমনই চলবে। উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী তীর্থ সিং রাওয়াতেরও সাফ কথা, পুণ্যার্থীরা কোভিড বিধি মেনেই অংশ নিচ্ছেন। মাস্ক পরে, সামাজিক দূরত্ব মেনেই সবকিছু করছেন। ভয়ের কিছু নেই।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More