করোনাকে দমানো যাচ্ছে না, মধ্যরাত থেকে ‘স্মার্ট লকডাউন’ পাকিস্তানে

পাকিস্তান গত ২৩ মে ঈদের আগে আগে প্রায় সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছিল। কিন্তু সে দেশের স্বাস্থ্যকর্মী ও বিরোধী দলেরা বলছে, ওই সিদ্ধান্তের কারণেই সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে গেছে। পাকিস্তানে গত এক মাসে কোভিড-১৯ সংক্রমণের সংখ্যা প্রায় চারগুণ বেড়েছে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পাকিস্তানে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ব্যাপকভাবে বাড়ছে। একবার লকডাউন তুলে নিয়ে ফের সেই পথেই হাঁটতে চলেছে ইসলামাবাদ। গত ইদের আগে দেশে লকডাউন তুলে নেয় পাকিস্তান সরকার। এর পরে করোনা যেন লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে। পরিসংখ্যান বলছে, গত ১৫ মে কোভিড সংক্রমিতের সংখ্যা ছিল ৩৭ হাজারের কিছু বেশি। আর ঠিক এক মাস পরে মঙ্গলবার সেই সংখ্যা ১ লাখ ৪৯ হাজারে উঠে গেছে। এই পরিস্থিতিতে পাক সরকার ২০টি বড় শহরের নির্দিষ্ট কিছু কিছু এলাকা লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকেই তা কার্যকর হবে। বাছাই এলাকায় এই লকডাউনের নাম দেওয়া হয়েছে ‘স্মার্ট লকডাউন’।

পাকিস্তান গত ২৩ মে ইদের আগে আগে প্রায় সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছিল। কিন্তু সে দেশের স্বাস্থ্যকর্মী ও বিরোধী দলেরা বলছে, ওই সিদ্ধান্তের কারণেই সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে গেছে। পাকিস্তানে গত এক মাসে কোভিড-১৯ সংক্রমণের সংখ্যা প্রায় চারগুণ বেড়েছে। এই পরিস্থিতিতে সরকার ঠিক করেছে, যেসব এলাকায় সংক্রমণের হার বেশি – সেই এলাকাগুলোকে দু’সপ্তাহের জন্য সম্পূর্ণ ‘সিল’‌ করে দেওয়া হবে। দু’সপ্তাহের মধ্যে সংক্রমণ পরিস্থিতিতে উন্নতি দেখা গেলে তবেই বিধিনিষেধ শিথিল করা হবে।

আরও পড়ুন

বিশ্বজুড়ে দ্বিতীয়বারও কি ধাক্কা দেবে করোনা! দু’সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন এক লাখের বেশি সংক্রমণ, চিন্তায় হু

এদিনই পাকিস্তানে ১ লক্ষ ৪৮ হাজারের গণ্ডি ছাড়িয়ে গেল করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের প্রধান শহরগুলিতে লাগু হল ‘স্মার্ট লকডাউন’। ইসলামাবাদ ও পেশোয়ারের একাংশ সিল করে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার ন্যাশনাল কমান্ড এন্ড অপারেশন সেন্টার-এর পক্ষ থেকে কোভিড-১৯ হটস্পট চিহ্নিত করে ২০টি শহরের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এই সব এলাকায় বিধিনিষেধ আরও কঠিন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল দশটা পর্যন্ত করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১,৪৮,৯২১। পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশে এখনও পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৫৫,৮৭৮ জন, সিন্ধু প্রদেশে ৫৫,৫৮১ জন, খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে ১৮,০১৩, বালোচিস্তানে ৮,১৭৭, ইসলামাবাদে ৮,৮৫৭। পাকিস্তানে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২,৮৩৯ জনের। পাক স্বাস্থ্য দফতর সূত্রের খবর, সিন্ধু প্রদেশে ৮৫৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন, পঞ্জাবে ১,০৮১, খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে ৭০৭, বালোচিস্তানে ৮৫, ইসলামাবাদে ৮৩ জন মারা গিয়েছেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More