ইন্ডিয়ানাপোলিসে গুলিচালনায় নিহতদের ৪ জন শিখ নাগরিক, শোক জানালেন বিডেন, কমলা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানাপোলিসে বন্দুকবাজের হামলায় নিহত আটজনের মধ্যেই চারজনই ভারতীয় বংশোদ্ভূত নাগরিক। গতকাল রাতে স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে একথা জানানো হয়েছে। মৃত চারজন ও আহতদের একজন শিখ সম্প্রদায়ের বলে খবর। ইন্ডিয়ানাপোলিস মেট্রোপলিটন পুলিশ ডিপার্টমেন্ট (আইএমপিডি) জানিয়েছে, অমরজিৎ জোহাল, যশবিন্দর কৌর, অমরজিৎ খোন ও যশবিন্দর সিং ফেড-এক্স ডেলিভারি সেন্টারে গুলিচালিনায় মারা যান। ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বিডেন। ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসও তাঁর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

গতকাল সন্ধ্যায় ইন্ডিয়ানার এই সেন্টারটিতে হামলা চালায় এক দুষ্কৃতী। পরে সে নিজেও আত্মঘাতী হয়। প্রাথমিক তদন্তের পর জানা যায়, আততায়ীর নাম ব্র‍্যান্ডন স্কট হোল। বছর উনিশের ব্যান্ডন স্থানীয় বাসিন্দা বলে সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর৷ গুলির আঘাতে ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান ৮ জন সাধারণ নাগরিক। গুরুতর জখম হন ৫ জন। তাঁদের মধ্যে হরপ্রীত সিং গিল নামে এক শিখ সম্প্রদায়ের তরুণও রয়েছেন। ঘটনার পর গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে এই ঘটনায় শোক জানিয়েছেন স্থানীয় শিখ গোষ্ঠীর নেতা গুরিন্দির সিং খালসা। তিনি বলেন, ‘ভীষণ মর্মান্তিক৷ এই আকস্মিক ঘটনায় এখানকার সমস্ত শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ অত্যন্ত মর্মাহত।’

যদিও শুধুমাত্র দুঃখপ্রকাশ করেই থেমে থাকেননি খালসা। বরং, এ ধরনের ঘটনা এড়াতে মার্কিন প্রশাসনকে আরও কঠোর হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। খালসা সাফ জানান, ‘৯/১১-এর পর থেকেই আমেরিকার শিখ সম্প্রদায়ের মানুষেরা বহুবার অত্যাচারের শিকার হয়েছেন। এ জাতীয় গণহত্যা এই দেশে প্রাথম নয়৷ প্রেসিডেন্টের কাছে আমাদের অনুরোধ, দয়া করে ব্যবস্থা নিন।’

সাম্প্রতিক সময়ে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার আমেরিকার শিখ সম্প্রদায় বন্দুকবাজের নিশানায় এলেন। ২০১২ সালে উইসকন্সিনের একটি গুরুদ্বারাতে আততায়ীর নির্বিচার গুলিচালনার ঘটনায় প্রাণ হারান সাত জন শিখ নাগরিক। সেই ঘটনাকে স্মরণে এনে খালসা যোগ করেন, মার্কিন মুলুকে এশিয়-আমেরিকানদের মধ্যে শিখেরা বরাবর সাম্প্রদায়িক হিংসার শিকার হন৷ এর অন্যতম কারণ তাঁদের পোশাক সহ অন্যান্য আচার-বিচার। তা ছাড়া আমেরিকায় যেভাবে আকছার বন্দুক ব্যবহারের ছাড়পত্র দেওয়া হয়, সে বিষয়েও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি। হিংসা এড়াতে এ বিষয়ে কড়া আইন জারি করা হোক। মত খালসার।

অন্যদিকে জো বিডেন তাঁর বার্তায় শোক জ্ঞাপন করেছেন। এদিন হোয়াইট হাউসে মার্কিন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকে৷ বিডেন জোর গলায় জানান, ‘সাধারণ নাগরিকদের এভাবে টার্গেট করা আর কোনওভাবে বরদাস্ত করা হবে না। স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও মানবাধিকারকে আমেরিকায় যে কোনও মূল্যে বজায় রাখা হবে বলেও স্পষ্ট করেন তিনি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More