বাবার পাশে দাঁড়াতে পড়াশোনাও ছাড়তে হয়!অকপটে বললেন অভিষেক বচ্চন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভাগ্যের চাকা চিরকাল একভাবে ঘোরে না। জীবনে সাফল্য যেমন আছে, সেরকম খারাপ সময়ও আছে। অর্থ, যশ, মান, খ্যাতির শীর্ষে থেকেও যে সময়ের চাকা ঘুরে যেতে পারে তারই উদাহরণ হল বলিউডের বচ্চন পরিবার। সব পেয়ে, আবার হারিয়ে ফেলে নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর সত্যি গল্প লিখেছেন তাঁরা। এক সময় অমিতাভের আর্থিক অবস্থা নাকি এতটাই খারাপ হয়ে গিয়েছিল যে, পড়াশোনা ছেড়ে বাবার পাশে দাঁড়াতে বাধ্য হয়েছিলেন অভিষেক!

নব্বইয়ের দশকে অমিতাভের কোম্পানি ‘এবিসিএল’ আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছিল। সে সময় নাকি বাবার পাশে দাঁড়িতে লেখাপড়া ছেড়ে কাজের খোঁজ করতে শুরু করেন অভিষেক। সম্প্রতি ইউটিউবার রণবীর আলহবাদিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সেই সব স্ট্রাগলের দিনের কথা শেয়ার করেছেন অভিষেক।

অকপটে অভিষেক জানান, “সত্যি বলতে কি, সে সময় আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছিলাম। বস্টনে পড়াশোনা করতাম। বাবার আর্থিক অবস্থা খুব খারাপ হয়ে গিয়েছিল। এবিসিএল-এর ব্যবসা মার খায়। আমি বাবাকে সাহায্য করার জন্য যথেষ্ট শিক্ষিত ছিলাম না। কিন্তু ছেলে হিসেবে মনে হয়েছিল, সে সময় বাবার পাশে থাকা দরকার। তাই পড়াশোনা ছেড়ে দিয়ে ব্যবসায় সাহায্য করতে শুরু করেছিলাম।”

অভিষেক আরও জানিয়েছেন, সে সময় যশ চোপড়ার কাছে কাজ চাইতে গিয়েছিলেন স্বয়ং অমিতাভ। কারণ কেরিয়ার বা ব্যবসা কোনওটাই ঠিক চলছিল না। অমিতাভ নাকি নিজে থেকেই বলেছিলেন, তাঁর কাছে কোনও কাজ নেই। কোনও ছবি চলছে না তাঁর। কেউ তাঁকে কাজ দিচ্ছেন না। সে সময় ‘মহব্বতে’ ছবির অফার পান তিনি। একই সঙ্গে টেলিভিশনে শুরু হয় ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’র হাত ধরেই সৌভাগ্যের মুখ দেখে বচ্চন পরিবার। যশ, খ্যাতি, মান তো ছিলই, সেই সঙ্গে ফিরে আসে অর্থও।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More