১২ বছর ধরে পরিত্যক্ত, পুনরায় ব্যবহার করতে গিয়ে ভেঙে পড়ল প্রায় দেড় লক্ষ গ্যালনের রিজার্ভার

দ্য ওয়াল ব্যুরো, আসানসোল: সাময়িক জল পরিষেবা দিতে গিয়ে ঘটলো বিপত্তি। দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা পরিত্যক্ত রিজার্ভারে জল ভরে সরবরাহ করতে গিয়ে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল সেটি। বুধবারের ঘটনাটি ঘটেছে জামুড়িয়ায়। বিষয়টিকে নিয়ে তৃণমূল-সিপিএমের মধ্যে দোষারোপ করা শুরু হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, চিচুড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত আরএন কলোনির কাছে একটি পরিত্যক্ত রিজার্ভার রয়েছে। প্রায় ১৫ বছর ধরে সেটি সংস্কারহীন অবস্থায় পড়েছিল। বর্তমানে এলাকায় অজয় নদী থেকে জল পরিশ্রুত করে কাছে একটি পাম্পিং স্টেশন থেকে এলাকায় জল সরবরাহ করা হয়। কিন্তু তবুও এলাকা জলের অভাব রয়েছে। তাই সেই রিজার্ভারটিকে পুনরায় সচল করার দাবি ওঠান এলাকার মানুষ। তাই সাময়িকভাবে রিজার্ভার চালু করার সিদ্ধান্ত নেয় আসানসোল পুরসভা।

সেই মতো মঙ্গলবার গভীর রাতে জামুড়িয়ায় ১ লক্ষ ৭৫ হাজার গ্যালনের জলের ওভারহেড রিজার্ভার ভরা হয়। সংস্কারের অভাবে রুগ্ন রিজার্ভারটি হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। আকস্মিক গোটা এই ঘটনায় এলাকায় আতঙ্কিত হয়ে পড়ে মানুষ জল। তবে কোন জীবনহানির ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি স্থানীয়দের।

চিচুড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান বিশ্বনাথ সাঙ্গুই জানান,  বাম আমলে এই জল রিজার্ভারের সাহায্যে জল সরবরাহ করা হতো প্রত্যন্ত এলাকায়। বিগত ১৫ বছরের বেশি এই জলের রিজার্ভার থেকে জল সরবরাহ বন্ধ ছিল। কাছের একটি পাম্পিং স্টেশন থেকে এলাকার মানুষের ঘরে ঘরে জলপরিষেবা সেবা পৌঁছে দেওয়া হত।

গত পরশুদিন থেকে এই রিজার্ভারটিতে জল ভরার কাজ চলছিল। গতকাল রাতে দেড়টা নাগাদ ভেঙে পড়ে সম্পূর্ণভাবে। এই ঘটনার জন্য বাম সরকারকেই দায়ী করেছেন তিনি। তবে সিপিআইএম নেতা সুকুমার সাঙ্গুই জানান ১২ বছর আগে এই জলের রিজার্ভার পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছিল সরকার। এরপর ভোটের আগে রাজনৈতিক সুবিধা পাওয়ার জন্য তৃণমূল পুনরায় রিজার্ভারের মধ্যে জল ভরে মানুষকে মিথ্যা ভরসা দিচ্ছিলেন। শুধুমাত্র ভোটের রাজনীতির জন্য এধরনের কাজ করে মানুষজনদের ধোঁয়াশায় রাখতে চাইছে তৃণমূল বলেই দাবি করেন সুকুমারবাবু। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, এই রিজার্ভার চালু হলে এলাকায় জলের সমস্যা মিটে যাওয়ার কথা ছিল। তা ভেঙে যাওয়ায় কার্যত হতাশ তারা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More