‘সরকার মুনাফা লুঠতে জ্বালানির দাম বাড়াচ্ছে’, মোদীকে সনিয়ার চিঠি নিয়ে সরব রাহুলও

লকডাউনে জ্বালানি তেলের চাহিদা একেবারেই কমে গিয়েছিল। কিন্তু আনলক ওয়ান শুরু হতেই চাহিদা বাড়ছে। সেই সঙ্গে ক্রমেই বাড়ছে জ্বালানির দাম। এনিয়ে এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে এক চিঠি পাঠান সনিয়া।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানির দাম কমলেও দেশে দাম কমাচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার। শুধু মুনাফা লুঠ করার ছক কষছে। এই ভাবেই কেন্দ্রীয় সরকারকে এদিন আক্রমণ শানিয়েছেন কংগ্রেসের চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধী। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে লেখা চিঠিতে সনিয়া এমন দাবিও করেছেন যে, লকডাউনের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে পেট্রল, ডিজেলের দাম কমানো হোক। পরে সেই চিঠি টুইট করে সরব হয়েছেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তিনি লিখেছেন, সরকারের মুনাফার জন্য মধ্যবিত্ত ও গরিবের উপরে বোঝা চাপানো বন্ধ হোক।

লকডাউনে জ্বালানি তেলের চাহিদা একেবারেই কমে গিয়েছিল। কিন্তু আনলক ওয়ান শুরু হতেই চাহিদা বাড়ছে। সেই সঙ্গে ক্রমেই বাড়ছে জ্বালানির দাম। এনিয়ে এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে এক চিঠি পাঠান সনিয়া। তাতে তিনি বিশ্ব বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম কমলেও দেশের অভ্যন্তরে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রের সমালোচনা করেছেন।

তিনি সেই চিঠিতে বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আর তার জন্য লকডাউনের জেরে দেশের মানুষের আর্থিক কষ্ট চরম সীমায় পৌঁছেছে। এই পরিস্থিতিতেও তাতেও নাকি ভ্রুক্ষেপ নেই কেন্দ্রের। প্রতিদিনই একটু একটু করে বেড়ে চলেছে পেট্রোল, ডিজেলের দাম। এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে কংগ্রেসের চেয়ারপার্সন সনিয়া গান্ধীর অভিযোগ, “আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানীর দাম কমলেও দেশে দাম কমাচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার। শুধু মুনাফা লুঠ করার ছক কষছে।”

আরও পড়ুন

বিশ্বজুড়ে দ্বিতীয়বারও কি ধাক্কা দেবে করোনা! দু’সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন এক লাখের বেশি সংক্রমণ, চিন্তায় হু

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে লেখা চিঠিতে সোনিয়া গান্ধী জানান, “করোনার জেরে বিপদের মুখে দেশের অর্থনীতি। এই পরিস্থিতিতে লক্ষ লক্ষ মানুষ চাকরি খুইয়ে বেকার হচ্ছেন। বিপদের মুখে ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসা। মধ্যবিত্তের আয় দ্রুত কমছে, খারিফ মরসুমেও ধুঁকছেন কৃষকরা। কিন্তু তখনও সরকার কীভাবে জ্বালানির দাম বাড়িয়ে চলেছে আমি তার কোনও যুক্তি খুঁজে পাচ্ছি না।”

কংগ্রেস সভানেত্রী দাবি করেন, “গত সপ্তাহেই আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানির দাম ৯ শতাংশ কমেছে। কিন্তু এই দুঃসময়েও মুনাফা করা বজায় রেখেছে সরকার। এইভাবে দাম বাড়িয়ে ২,৬০,০০ কোটি টাকার বাড়তি রাজস্ব ঘরে তুলতে চাইছে সরকার।” অপরিশোধিত তেলের দাম কমাকে কাজে লাগিয়ে মানুষকে স্বস্তি দিতে অবিলম্বে জ্বালানির দাম কমানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী ব্যবস্থা নিন বলে অনুরোধ জানিয়েছেন সনিয়া।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More