ফের পর্যটকদের ক্যামেরা বন্দি সুন্দরবনের দক্ষিণরায়, এবার দোঁ-বাকির জঙ্গলে

দ্য ওয়াল ব্যুরো, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: মঙ্গলবার ভোরের আলো ফুটছে সবে। সেই আধো আলোতেই লঞ্চে করে সুন্দরবন ঘুরতে আসা পর্যটকদের চোখ আটকে গেল। জঙ্গল লাগোয়া খাঁড়িতে পায়ে পায়ে নেমে আসছে জঙ্গলের রাজা। এমন হঠাৎ পাওয়ায় তখন বাক্যহারা কলকাতা থেকে যাওয়া পর্যটকদের দলটি।

কলকাতা থেকে ১৮ জনের এক পর্যটক দল সোমবার গোসাবার গদখালি থেকে লঞ্চে ওঠেন সুন্দরবন ভ্রমণের জন্য। মঙ্গলবার সাতসকালেই তাঁরা দেখতে পান নদী লাগোয়া গরান-গেওয়ার জঙ্গলের ধার দিয়ে ধীর গতিতে হাঁটছে দক্ষিণ রায়। তারপর নেমে আসছে নদীর খাঁড়িতে। কিছুক্ষণ সেখানে দাঁড়িয়ে সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলে ঢুকে যায় বাঘটি। আর এই দৃশ্য দেখে আনন্দে মেতে উঠেন পর্যটকরা।

করোনা তাণ্ডবের পর চলতি বছরের শুরু থেকেই সুন্দরবনে পর্যটকদের আনাগোনা বেড়েছে। পাশাপাশি আনাগোনা বেড়েছে সুন্দরবনের দক্ষিণরায়েরও। কয়েকদিন আগেই দো-বাঁকি জঙ্গল এলাকায় পর্যটকদের ক্যামেরায় বন্দি হয় একসঙ্গে তিন তিনটি বাঘ। বারবার বাঘের দেখা মেলায় দেশ বিদেশের পর্যটকদের কাছে সুন্দরবন ভ্রমণের আকর্ষণ আরও বাড়বে বলেই মনে করেন ট্যুর অপারেটররা।

আরও পড়ুন: সুন্দরবনে বেনজির বাঘ দর্শন, পর্যটকদের ক্যামেরায় একসঙ্গে তিন-তিনটি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার

সুন্দরবন জঙ্গলে বাঘের সংখ্যা কত তা জানতে ডিসেম্বর মাসে ক্যামেরা বসানো হয়। দেশজুড়ে প্রতি চার বছর অন্তর বাঘ গণনার কাজ হয়ে থাকে। ন্যাশানাল টাইগার কনজারভেশন অথরিটি উদ্যোগে এই গণনার কাজ হয়। তাছাড়াও বনদফতরের উদ্যোগে প্রতিবছর নিয়ম করেই সুন্দরবনে বাঘ গণনার কাজ হয়। সুন্দরবনের বসিরহাট, সজনেখালি, ইস্ট ও ওয়েস্ট ন্যাশানাল পার্ক, এই চারটি রেঞ্জের ৫৮২টি জায়গায় দুটি করে মোট ১১৬৪টি ক্যামেরা বসানো হয়। সেই ক্যামেরা তুলে আনার কাজ শুরু হয়েছে জানুয়ারি মাসের ৮ তারিখ থেকে। চলবে ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত। ক্যামেরায় তোলা ছবি মিলিয়ে শুরু হবে বাঘের সংখ্যা নির্ধারণের কাজ।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More