মোঘল সম্রাট আওরঙ্গজেবের মানসিকতা নিয়ে চলে লস্কর, জৈশ, আইসিস, বললেন বিজেপি নেতা নাকভি

দ্য ওয়াল ব্যুরো : আল কায়েদা, ইসলামিক স্টেট এবং লস্কর ই তৈবা। এই ধরনের সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলির জন্ম দিয়েছেন মোঘল সম্রাট আওরঙ্গজেব। বিজেপি নেতা মুখতার আব্বাস নাকভি বুধবার এই মন্তব্য করেছেন। এদিন কনস্টিটিউশন ক্লাবে মোঘল রাজকুমার দারা শুকোর সম্পর্কে ভাষণ দিতে গিয়ে নাকভি বলেন, তিনি ছিলেন জাতীয়তাবাদের প্রতীক। অন্যদিকে আওরঙ্গজেব হলেন সন্ত্রাসের প্রতীক।

তাঁর কথায়, আওরঙ্গজেবের মতো নিষ্ঠুর শাসক যে অত্যাচার চালিয়েছিলেন, তাকে কট্টর মুসলিম মৌলবাদী, বামপন্থী ও তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষ ইতিহাসবিদরা গৌরবান্বিত করেন। নাকভির মতে, আওরঙ্গজেবের উদ্দেশ্য ছিল সব মানবিক গুণ ধ্বংস করে ফেলা। তিনি ভারতের সনাতন সংস্কৃতিও ধ্বংস করতে চেয়েছিলেন। এই চিন্তাধারা থেকেই আল কায়েদা, আইসিস, জৈশ ই মহম্মদ, লস্কর ই তৈবার মতো সংগঠনের জন্ম হয়।

নাকভি মনে করিয়ে দেন, মোদীর নেতৃত্বে এনডিএ সরকারের আমলে লুতিয়েনস দিল্লির ডালহৌসি রোডের নামকরণ হয়েছে দারা শুকো রোড। তার দু’কিলোমিটার দূরে আওরঙ্গজেব রোডের নামকরণ হয়েছে এ পি জে আবদুল কালাম রোড।

বিজেপি বরাবরই মোঘল সম্রাট আওরঙ্গজেবের খুব বিরোধী। ২০১৭ সালে কংগ্রেসের সভাপতি পদে রাহুল গান্ধীর অভিষেক যখন আসন্ন তখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কটাক্ষ করে বলেছিলেন, এবার কংগ্রেসে আওরঙ্গজেব রাজ শুরু হবে। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে রাজস্থান বিজেপির সহ সভাপতি কংগ্রেসের তৎকালীন সভাপতি রাহুলকে আওরঙ্গজেবের সঙ্গে তুলনা করেন।

সেই সভায় রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের নেতা কৃষ্ণগোপাল বলেন, শাহজাহানের বড় ছেলে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলতেন। তাঁর ভাই আওরঙ্গজেব ছিলেন উলটো। একইসঙ্গে তিনি বলেন, ভারতে ১৬ কোটি মুসলিম বাস করেন। তাঁদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই। পার্সি, বৌদ্ধ ও জৈনদের মতো অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায় এদেশে নিজেদের নিরাপদ মনে করেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More