বিরল প্রজাতির স্নো লেপার্ড পরিবারে নতুন তিন সদস্য, গর্বিত পদ্মজা নাইডু চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ

দ্য ওয়াল ব্যুরোঃ দার্জিলিঙের পদ্মজা নাইডু জুলজিকাল পার্ক বিরল প্রজাতির জীবকূলের শান্তির আশ্রয়। পর্যটকরা রেড পান্ডা এবং স্নো লেপার্ড দেখতে বছর বছর এখানেই ভিড় করেন। তাছাড়া রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার, ব্ল্যাক পাইথন তো আছেই। নজর ছিনিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে কেউই কম যায় না।

গত বছর করোনার আবহে চিড়িয়াখানা বন্ধ ছিল ছ’মাস। মানুষের আনাগোনা নেই, পশু-পাখিরা আপন খেয়ালেই মজে ছিল নিজের নিজের ডেরায়। আলস্য ভরা জীবন। দর্শকের সামনে পোজ দেওয়ার অব্যহতি। পরে দেখা গেল, সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছে সবাই। পরিবারে একের পর এক নতুন সদস্যর সংযোজনে খুশির জোয়ারে ভাসছিল এনক্লোজারগুলো।

২০২০-র সেপ্টেম্বর থেকে দর্শকদের জন্য আবার উন্মুক্ত হল পদ্মজা নাইডু জুলজিকাল পার্ক। পশুদের নড়াচড়া ফের বাঁধা গতেই। তবু, সম্প্রতি আরও এক খুশির খবরে মেতে উঠল চিড়িয়াখানার টপকিদারা চত্ত্বর। স্নো লেপার্ড দম্পতি জিমা এবং নামকার কোল জুড়ে এখন ফুটফুটে তিনটি শাবক। এমাসের ১০ তারিখেই জন্ম নিয়েছে তারা। সব মিলিয়ে পদ্মজা নাইডু চিড়িয়াখানায় স্নো লেপার্ডের সংখ্যা বর্তমানে বেড়ে দাঁড়াল ১২। প্রসঙ্গত, গোটা বিশ্বে এখন স্নো লেপার্ডের সংখ্যা পাঁচ-ছ’হাজারের বেশি নয়।

চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, সংরক্ষণ প্রকল্পের সাফল্যেই আজ এই খুশির মুখ দেখছে চিড়িয়াখানা। স্নো লেপার্ড প্রজনন ও সংরক্ষণ প্রকল্পের আওতায় মা ও শাবকরা সকলেই এখন সুস্থ। দ্বিতীয় আরেকটি প্রকল্পের মাধ্যমে খুব শীঘ্রই স্নো লেপার্ডদের অভয়ারণ্যে রেখে আসার ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More