রাজ্যে আক্রান্ত ১০ হাজার ছুঁইছুই, তিন মাসে একবারও কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেননি মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য দফতরের দায়িত্বে আছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সারা দেশের মতো রাজ্যেও দেখা দিয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। মঙ্গলবারই জানা গিয়েছে, দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৯৮১৯ জন। রাজ্যে এখন আট দফার বিধানসভা ভোট চলছে। এর মধ্যে গত তিন মাসে একবারও কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেননি মমতা। রাজ্যে যখন কোভিড সংকট চরমে, তার মধ্যে গত সোমবার অতিমহামারী নিয়ে একটি রিভিউ মিটিং এড়িয়ে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ওইদিন ভোটের প্রচারে তিনি গিয়েছিলেন মালদহে। সেখানে কোভিড নিয়ে একটি সাংবাদিক বৈঠকও করেছিলেন।

মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, তাঁর সরকার কোভিড আক্রান্তদের জন্য বরাদ্দ বেড ২০ শতাংশ বাড়াবে। একইসঙ্গে তিনি কোনওরকম লকডাউনের সম্ভাবনা তিনি উড়িয়ে দেন। বিজেপিকে দোষ দিয়ে তিনি বলেন, তারা ভিন রাজ্য থেকে ‘শত শত’ লোক এনেছে। তার ফলে সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে। ভোটে রাজ্যে দেড় লক্ষ কেন্দ্রীয় বাহিনীর রক্ষী মোতায়েন নিয়েও তিনি প্রশ্ন তোলেন।

মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তাঁর কথায়, “রাজ্যে প্রায় ২ হাজার কোভিড রোগীর অবস্থা সংকটজনক। বাকিদের অবস্থা স্থিতিশীল।” পরে তিনি বলেন, “পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য আমরা চার সদস্যের টাস্ক ফোর্স গড়েছি।”

নির্বাচনে প্রচার করার জন্যই তিনি কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি। এছাড়া গত ১৭ মার্চ ও ৮ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দু’টি ভিডিও কনফারেন্সও তিনি এড়িয়ে গিয়েছেন। তাঁর হয়ে ওই দু’টি বৈঠকে যোগ দেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

২০ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ৩৮৬ জন। গত কয়েকদিনে মমতা দু’বার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন। গত ১৮ এপ্রিল একটি চিঠিতে তিনি লেখেন, পশ্চিমবঙ্গে ২.৭ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়ার জন্য ভ্যাকসিনের ৫.৪ কোটি ডোজ চাই। একইসঙ্গে তিনি দৈনিক রেমডেসেভিরের ৬ হাজার ভায়াল দাবি করেন। তিনি বলেন, রাজ্যের হাতে ওই ওষুধের মাত্র ১ হাজার ভায়াল আছে।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীকে ফের একটি চিঠি দিয়ে তিনি লেখেন, কেন্দ্রীয় সরকার ব্যাপক হারে টিকাকরণের যে কথা বলছে, তা ফাঁকা আওয়াজ মাত্র। কারণ রাজ্যগুলির হাতে ভ্যাকসিনের যথেষ্ট সংখ্যক ডোজ নেই। গত কয়েক সপ্তাহের প্রচার কর্মসূচির মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী নিজে এখনও টিকা নেননি।

রাজ্যে শাসক তৃণমূল কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা করে বলেছে, কোভিড মোকাবিলায় তিনি সবসময় এগিয়ে আছেন। দলের সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী নিজে মিটিং করতে পারছেন না ঠিকই, কিন্তু প্রশাসন তাঁর নির্দেশেই চলছে।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More