‘মিনি ইন্ডিয়া’ ভবানীপুর বদল চায়, প্রচার শুরু করেই দিদির বিরুদ্ধে তোপ রুদ্রর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণা হওয়ার পর, শনিবার প্রথম প্রচার শুরু করলেন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। ভবানীপুরকে ‘মিনি ইন্ডিয়া’ বলে উল্লেখ করেন তিনি। রুদ্র তাঁর ফেসবুক পেজে লেখেন, “বাংলার ‘মিনি ইন্ডিয়া’ ভবানীপুর এবার বদল চায়। যেখানে সব ভাষা, সব ধর্ম, সব সম্প্রদায়ের মানুষ থাকেন। এই বদলের ইঙ্গিতের আশঙ্কায় তৃণমূল নেত্রী নিজের কেন্দ্র থেকে বিদায় নিয়েছেন। এবার সেই চর্চিত ভবানীপুর কেন্দ্র থেকে আমায় প্রার্থী করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি।”

ভবানীপুর ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কেন্দ্র। কিন্তু এবার দিদি তাঁর ছোট বোন নন্দীগ্রাম থেকে লড়ছেন। এই কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী করেছে বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়কে। বর্ষীয়ান নেতার প্রতিপক্ষ এবার একসময়ে শাসক দলে থাকা তারকা প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষ।

প্রতিপক্ষ শোভনদেবের প্রতি তাঁর কোনও অভিযোগ নেই বলে জানিয়েছেন রুদ্র। তাঁর কথায়, “শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় নিপাট ভাল মানুষ। মুখ্যমন্ত্রী ওঁকে রাসবিহারী থেকে তুলে এনে ভবানীপুরে দাঁড় করিয়ে বিষপান করালেন।”

২০১৪-র লোকসভার নিরিখে ভবানীপুর বিধানসভায় পিছিয়ে ছিল তৃণমূল। লিড পেয়েছিল বিজেপি। আবার উনিশের লোকসভায় এই বিধানসভায় তৃণমূল সামান্য এগিয়ে ছিল বটে কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর নিজের বাড়ির ওয়ার্ড ৭৩ নম্বরেই পিছিয়ে ছিল শাসকদল। বিজেপির বক্তব্য, একুশের ভোটে ভবানীপুর তাদের জন্য উর্বর। সেসব সাত সতেরো অঙ্ক কষেই রুদ্রকে প্রার্থী করেছে গেরুয়া শিবির।

একটা সময়ে রুদ্রনীল ছিলেন সিপিএমের ছাত্র সংগঠন এসএফআইআয়ের নেতা। হাওড়া নরসিংহ দত্ত কলেজের ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। সিপিএমের পার্টি সদস্যপদও পেয়ছিলেন। কিন্তু ২০০৭ নাগাদ সব চুকিয়ে দেন তিনি। তারপর প্রায় এক দশক সক্রিয় রাজনীতির সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ ছিল না। ষোলর ভোটে মমতা দ্বিতীয় বার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর সাঁতরাগাছির রুদ্র দিদির ঘনিষ্ঠ হয়ে পড়েন। মোটা বেতনের সরকারি কমিটির পদও পান। কিন্তু রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ এই অভিনেতা কয়েক মাস ধরেই চাল চুরি, ত্রিপল চুরি নিয়ে সরব ছিলেন। শেষমেশ জানুয়ারির শেষে গেরুয়া শিবিরে যোগ দেন তিনি। এবার তাঁকে মুখ্যমন্ত্রীর আগের কেন্দ্রে প্রার্থী করেছে গেরুয়া শিবির। এদিন প্রচার শুরু করলেন বাংলা সিনেমার ‘চ্যাপলিন।’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More