সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক, ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ হতে পারে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : গত ফেব্রুয়ারিতে বাজেটে বড় ধরনের বেসরকারিকরণের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। সম্প্রতি জানা গিয়েছে, সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী, সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্কে নিজেদের শেয়ার বেচে দিতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। ওই দু’টি ব্যাঙ্ককে বেসরকারিকরণ করতে বলেছিল নীতি আয়োগ। তথ্যাভিজ্ঞ মহলের ধারণা, ওই দুই ব্যাঙ্ক বাদে ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ারও সরকারি শেয়ার বেচে দেওয়া হতে পারে।

অর্থমন্ত্রক সূত্রে খবর, কোন কোন সংস্থার বেসরকারিকরণ করা যায়, তা নিয়ে এখন আলোচনা চলছে ডিসইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস দফতরে। প্রাথমিকভাবে নীতি আয়োগ পরামর্শ দেবে, কোন সংস্থাগুলির বিলগ্নিকরণ করা যেতে পারে। পরে একাধিক মন্ত্রকের অফিসারদের নিয়ে গঠিত একটি কমিটি সেই প্রস্তাব খতিয়ে দেখবে। পরে সেই প্রস্তাব বিবেচনা করবেন কয়েকজন মন্ত্রী। শেষে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা সেই প্রস্তাব অনুমোদন করবে।

সরকারি সম্পত্তি বিক্রির ব্যাপারে যে দফতর সিদ্ধান্ত নেয়, তার নাম ডিপার্টমেন্ট অব ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড পাবলিক অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট। ওই দফতর জানিয়েছে, সরকারি ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ কীভাবে করা যায়, সেজন্য কোনও আইনের পরিবর্তন করা প্রয়োজন কিনা, তা নিয়ে তারা ডিপার্টমেন্ট অব ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেসের সঙ্গে আলোচনা করবে। বিলগ্নিকরণের জন্য উপযুক্ত আইনি বন্দোবস্ত করতে পারলে তবেই সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের শেয়ার বেচবে।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ করতে গেলে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সঙ্গেও আলোচনা করতে হবে অর্থমন্ত্রককে। সম্প্রতি আইডিবিআই ব্যাঙ্কে সরকারের শেয়ার বেচে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। সরকারের আশা, চলতি আর্থিক বছরের মধ্যেই আইডিবিআইয়ের শেয়ার বেচে ফেলা যাবে।

নীতি আয়োগ জানিয়েছে, সরকারের এক ডজন ঋণদাতা সংস্থার মধ্যে ছ’টির বিলগ্নিকরণ করা যেতে পারে। তার মধ্যে রয়েছে ব্যাঙ্ক অব মহারাষ্ট্র, পাঞ্জাব অ্যান্ড সিন্ধ ব্যাঙ্ক, ইউকো ব্যাঙ্ক। এছাড়া রয়েছে সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক, ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্ক।

সরকারের ধারণা, যে ব্যাঙ্কগুলির আর্থিক অবস্থা মজবুত, তাদের কেনার জন্য ক্রেতা জুটবে বেশি। সেজন্যই ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্ক ও সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ককে বেছে নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে দু’টি ব্যাঙ্কের শেয়ারের মোট মূল্য ৪৪ হাজার কোটি টাকা।

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More