মোদী সরকারের বিন্দুমাত্র লজ্জাবোধ থাকলে, ল্যানসেটের রিপোর্টের পর দেশের কাছে ক্ষমা চাক: চিদম্বরম

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ল্যানসেটের রিপোর্টকে হাতে নিয়ে কেন্দ্রে মোদী সরকারের মুণ্ডপাতে নেমে পড়লেন বিরোধীরা।
শনিবার আন্তর্জাতিক মেডিকেল জার্নালের সম্পাদকীয়তে তুলোধনা করা হয়েছে নরেন্দ্র মোদী সরকারের। তাতে বলা হয়েছে, “কোভিড বিপর্যয় নিয়ে সমালোচনা ও খোলা আলোচনা রুখতে প্রধানমন্ত্রী মোদী যে ভাবে নেমে পড়েছেন তা ক্ষমার অযোগ্য”। এও বলা হয়েছে, “বলা হয়েছে, ১ অগস্টের মধ্যে ভারতের কোভিডে মৃত্যু ১০ লক্ষ ছাড়াতে পারে। সত্যিই যদি তাই হয়, তা হলে নিজেদের ডেকে আনা সেই বিপর্যয়ের জন্য দায়ী থাকবে মোদী সরকার”।

ল্যানসেটের ওই প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর সরকার বিরোধী সমালোচনা ঝাঁঝ বাড়িয়েছেন বিরোধীরা। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম বলেছেন, “মোদী সরকারের যদি বিন্দু মাত্র লজ্জাবোধ থাকলে ল্যানসেটের এই সম্পাদকীয় দেখার পর গোটা দেশের সামনে ক্ষমা চাওয়া উচিত”। চিদম্বরমের কথায়, স্বাস্থ্য মন্ত্রীর উচিত এখনই পদত্যাগ করা।

ল্যানসেট লিখেছে, “এখন যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তাতে সবার আগে সরকারের উচিত তাদের ত্রুটি ও ভ্রান্তিকে স্বীকার করে নেওয়া। তার পর স্বচ্ছতার সঙ্গে কোভিডের মোকাবিলায় নামা। সেই রণকৌশলের ভিত্তি যেন শুধু বিজ্ঞান হয়”।

আন্তর্জাতিক মেডিকেল জার্নালের এই বক্তব্য, ঘরোয়া রাজনীতির বিরোধীদের সংশয়াতীত ভাবেই অক্সিজেন যুগিয়েছে। তার পর চিদম্বরম বলেছেন, দেশে কোভিড মোকাবিলার ভার এখন একটি এম্পাওয়ার্ড গ্রুপ তথা ক্ষমতাশালী গোষ্ঠীকে দেওয়া উচিত। এর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্য মন্ত্রী বা তাঁদের উপদেষ্টারা নাক না গলালেই ভাল।
একটা সময় ছিল, যখন আন্তর্জাতিক মহল থেকে মনমোহন সরকারের ব্যর্থতা বা নীতিপঙ্গুতা নিয়ে সমালোচনা করা হলে গেরুয়া শিবির বিশেষ করে মোদী বাহিনী উল্লাস করত। ২০১১ সালের শেষ থেকে চোদ্দ সালের ভোটের আগে পর্যন্ত তা এক প্রকার লাগাতার চলেছে। এ বার যেন উলোটপুরান শুরু হয়েছে। আন্তর্জাতিক মহল থেকে সমালোচনার মুখে পড়তে শুরু করেছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। সেই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রকে আরও চেপে ধরতে চাইছেন রাহুল গান্ধী-পি চিদম্বরমরা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More