২০০০ কোভিড রোগী আশঙ্কাজনক! মুখ্যমন্ত্রী বললেন, প্যানিকের কারণ নেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত পরশুই সরকারি স্তরে বৈঠক করে কোভিড পরিস্থিতি রুখতে বিশেষ টাস্ক ফোর্স তৈরি করেছিলেন রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই ঘোষণা করা হয় রাজ্যের আসন্ন একাধিক পদক্ষেপ। আজ, সোমবার দুপুরে মালদায় সাংবাদিক বৈঠক করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফের জানিয়ে দিলেন রাজ্যের সিদ্ধান্তগুলি।

এদিন তিনি বলেন, ”নাইট কার্ফু বা লকডাউন কোনটাই সুরাহা করতে পারবেন না। বরং আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে হবে মানুষকে। প্ল্যানিং করতে হবে কোভিড মোকাবিলার জন্য। মানুষকে আতঙ্কিত নয়, সচেতন করতে হবে।”

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ”রাজ্যে ভ্যাকিসন পর্যাপ্ত নেই। অক্সিজেনের প্রয়োজনও রয়েছে। তাই কেন্দ্রকে বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। তাই বিষয়টিকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছি। প্রয়োজনে জরুরি ভিত্তিতে রাজ্য সরকারকে বাজার থেকে ভ্যাকসিন কিনতে হবে।”

একইসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উল্লেখ করেন, প্যানডেমিকের কথা চিন্তা করে কমিশনের আগে থেকে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত ছিল। ছোট ছোট সভা করা উচিত ছিল। কিন্তু তা করা হয়নি। ফলে রাজ্য করোনার সংক্রমণ বেড়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, রাজ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেখা দিয়েছে। রাজ্য সরকার তা মোকাবিলা করার জন্য পদক্ষেপ নিচ্ছে। এর জন্য গঠন করা হয়েছে টাস্ক ফোর্স। তাঁর কথায়, “আমরা স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি ঘোষণা করে দিয়েছি। ভোটের জন্য বহু সেফ হোম কেন্দ্রের হাতে চলে গিয়েছে। যেমন গীতাঞ্জলি স্টেডিয়াম। তবে বেশ কিছু সেফ হোম আমাদের হাতে রয়েছে। গোটা রাজ্য ২০০টি সেফ হোম রয়েছে। সেখানে ১১ হাজার বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। একইসঙ্গে কিছু হোটেলে সেফ হোম করা ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এছাড়াও জরুরি পরিষেবার জন্য ৪০০টি অ্যাম্বুলেন্স রয়েছে। প্রায় ১০০ সরকারি হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতালের আওতায় আনা হয়েছে।”

অন্যদিকে ৫৮ বেসরকারি হাসপাতালকেও কোভিড চিকিৎসার আওতায় আনা হয়েছে বলে জানান তিনি। সরকারি হাসপাতালে প্রায় চার হাজার বেড বাড়ানো হবে। দফতরগুলিতেও কর্মী সংখ্যা কমানোর জন্য ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’-এর নির্দেশ জারি করা হয়েছে। অফিস আসার ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ উপস্থিতি করা হচ্ছে। এছাড়াও বাজারগুলিতে স্যানিটাইজেশন করা কাজ শুরু হবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More