রাহুল গান্ধীর সামনেই মোদীকে ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলে বিতর্কে কংগ্রেস নেত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মঞ্চে তখন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বসে। ভাষণ দিতে উঠেছিলেন তেলঙ্গানার কংগ্রেস নেত্রী ও অভিনেত্রী বিজয়াশান্তি। উঠেই তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ‘জঙ্গি’ বলে বসলেন। শনিবারের এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্ক শুরু হয়েছে। এর আগে ২০১৭ সালে গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচনের আগে মোদীকে ‘নীচ আদমি’ বলে বিতর্ক তৈরি করেছিলেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা মণিশঙ্কর আইয়ার।

নোটবন্দি নিয়ে বলে গিয়ে বিজয়াশান্তি বলেন, “মোদী যে কখন কোন বোমা ফেলেন, তা নিয়ে সকলে সন্ত্রস্ত। ওঁকে দেখে সন্ত্রাসবাদী মনে হয়। দেশের মানুষকে ভালোবাসার পরিবর্তে উনি সবাইকে ভয় দেখাচ্ছেন। এটা দেশের প্রধানমন্ত্রীর চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য নয়।”

বিজয়াশান্তি শামশাবাদের ওই সভায় বলেন, আসন্ন লোকসভা নির্বাচন মূলত মোদী ও রাহুল গান্ধীর লড়াই। রাহুল গান্ধী গণতন্ত্র রক্ষার জন্য লড়ছেন বলে মন্তব্য করে ওই নেত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী একনায়কতন্ত্র চালানোর মতো করে দেশ শাসন করছেন। তিনি গণতন্ত্রকে হত্যা করছেন বলেও বিজয়াশান্তি মন্তব্য করেন। তাঁর কথায়, তেলঙ্গানার শাসক দল তেলঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতি বা টিআরএস-কে ভোট দিলে বিজেপি লাভবান হবে। কারণ, টিআরএস নেতা কে চন্দ্রশেখর রাও বিজেপিকে সমর্থন করছেন।

গুজরাট নির্বাচনের আগে এক সভায় মণিশঙ্কর বলেছিলেন, ‘মুঝকো লাগতা হ্যায় কি ইয়ে আদমি বহুত নীচ কিসিম কা আদমি হ্যায়, ইসমে কোই সভ্যতা নেহি হ্যায়।’ মোদীকে ‘নীচ’ বলার কারণে কংগ্রেস মণিশঙ্করকে আট মাসের জন্য দল থেকে সাসপেন্ড করে দেয়। দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, কংগ্রেস গান্ধীর নীতি অনুসরণ করে রাজনীতি করে। তারা রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে সম্মান করায় বিশ্বাসী। বিজয়াশান্তির বিরুদ্ধে কংগ্রেস কোনও ব্যবস্থা নেয় কি না তা এখন দেখার।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More