ক্রাশ করল কোউইন, ১৮ ঊর্ধ্বদের টিকাকরণের জন্য নাম রেজিস্ট্রেশনে সমস্যা

দ্য ওয়াল ব্যুরো : বুধবার থেকেই ১৮ বছরের বেশি বয়সীদের টিকাকরণের জন্য নাম রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে। অভিযোগ, টিকাকরণের জন্য যে সরকারি ওয়েবসাইটটি তৈরি হয়েছিল, সেই কোউইন এদিন ঠিকমতো কাজ করতে পারেনি। অনেকেই অভিযোগ করেছেন, ওই সাইটে নাম রেজিস্ট্রি করতে সমস্যা হচ্ছে। অবশ্য কোউইনে রেজিস্ট্রি করাতে সফলও হয়েছেন অনেকে।

দেশ জুড়ে কোভিড টিকাকরণের চতুর্থ পর্ব শুরু হচ্ছে ১ মে থেকে। এই পর্বে ১৮ বছরের বেশি যে কেউ টিকা নিতে পারবেন। টিকা নেওয়ার জন্য কোউইন সাইটে গিয়ে রেজিস্টার/সাইন ইন অপশনে ক্লিক করে নাম রেজিস্ট্রি করাতে হচ্ছে। অনেকের অভিযোগ, কোউইন সাইট খুলতে গেলে মেসেজ আসছে, ‘সার্ভার ইজ ফেসিং ইস্যুজ। প্লিজ ট্রাই লেটার।’

২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে ভারতে বিশ্বের সর্ববৃহৎ টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হয়। প্রথম পর্বে স্বাস্থ্যকর্মী ও সম্মুখসারির কোভিড যোদ্ধাদের টিকা দেওয়া হয়েছিল। তার পরের পর্বে ৬০ বছরের বেশি বয়সী এবং ৪৫ বছরের বেশি বয়সীদের মধ্যে যাঁরা বড় কোনও রোগে ভুগছেন, তাঁদের টিকা দেওয়া হয়। তৃতীয় পর্বে ৪৫ বছরের বেশি বয়সীদের টিকা দেওয়া হয়।

গত ফেব্রুয়ারি থেকে ভারতে দেখা দেয় কোভিডের দ্বিতীয় ওয়েভ। বর্তমানে রোজ দেশে তিন লক্ষের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। আর কোনও দেশে ২৪ ঘণ্টায় এত বেশি সংখ্যক মানুষের সংক্রমিত হওয়ার নজির নেই। রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় চাপ পড়েছে স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপরে। হাসপাতালে বেড পাওয়া যাচ্ছে না, অক্সিজেনের সংকট দেখা দিয়েছে, এমনকি স্ট্রেচারও যথেষ্ট সংখ্যায় পাওয়া যাচ্ছে না।

এই পরিস্থিতিতে ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বিভিন্ন দেশ।  চলতি সপ্তাহেই মার্কিন প্রশাসন ঘোষণা করেছে, তারা ভ্যাকসিন তৈরির কাঁচামালও ভারতে পাঠাবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ঘোষণা করেছেন, তাঁদের কাছে অ্যাস্ট্রাজেনেকার যে ডোজগুলি মজুত করা আছে, তার একাংশ ভারতে পাঠাবেন। অবশ্য ওই ডোজগুলি এখনও আমেরিকায় ব্যবহারের ছাড়পত্র মেলেনি। মার্কিন প্রশাসনের কর্তারা কয়েকটি ওষুধ কোম্পানির সঙ্গেও কথা বলেছেন। তাঁরা চান ওই সংস্থাগুলি ভারত ও দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশে আরও বেশি পরিমাণে প্রতিষেধক পাঠাক।

বুধবার সকালে জানা যায়, সারা দেশে একদিনে সর্বাধিক কোভিড আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে গত ২৪ ঘণ্টায়। একদিনে মারা গিয়েছেন তিন হাজার ২৯৩ জন। নতুন করে কোভিড সংক্রমিত হয়েছেন তিন লক্ষ ষাট হাজার মানুষ। যা এ পর্যন্ত সর্বাধিক।

দৈনিক মৃত্যু এবং সংক্রমণে শীর্ষে আছে মহারাষ্ট্রই। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ১ দিনে প্রায় ৯০০ জনের মৃত্যু হয়েছে মহারাষ্ট্রে। যা দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যার নিরিখে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি। পাশাপাশি, এই রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৬ হাজার ৩৫৮ জন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More