মৃত্যু মিছিল চলছেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পঞ্চায়েত ভোটের পর কেটে গিয়েছে প্রায় ১৮ ঘণ্টা। কিন্তু মৃত্যু মিছিল থামেনি। বরং হাসপাতালে ভর্তি থাকা আহতদের মৃত্যুর খবরে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে।

গনপিটুনিতে মৃত্যু হল নদিয়ার দত্তফুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তণ তৃনমূল সদস্য প্রণব বিশ্বাসের। জানা গিয়েছে, এ বছর পঞ্চায়েতে ভোটের প্রার্থী হয়েছিলেন প্রণববাবুর স্ত্রী। মঙ্গলবার সকালে নিজের বাড়ির সামনে আক্রান্ত হন প্রণববাবু। লাঠি এবং বাঁশ নিয়ে তাঁর উপর চড়াও হয় বেশ কিছু দুষ্কৃতী। বেধড়ক মারধর করা হয় তাঁকে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপান হয়। রানাঘাট মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। সেখানে মৃত বলে ঘোষণা করা হয় প্রণববাবুকে। অভিযোগ, সোমবার বিজেপির কর্মীরা বুথে চড়াও হলে বাধা দিয়েছিলেন তিনি। তার জেরেই এই ঘটনা কি না খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

কুলতলিতে গণপিটুনিতে মৃত্যু হয়েছে এক তৃণমূল কর্মীর। মৃতের নাম সুবীর আলি মোল্লা। চুপড়ি ঝাড়া এলাকায় এসইউসি কর্মীরা তাঁর ওপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে এসইউসি।

মালদাতেও ভোটের বলি হয়েছেন আরও ১ জন। গতকাল ভোট চলাকালীন বৈষ্ণবনগর থানার শাহবাজপুর অঞ্চলের গোলাবাড়ি এলাকায় বুথ দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ হয় তৃণমূল কংগ্রেস ও কংগ্রেসের মধ্যে। বুথের ভিতরেই অবাধে চলে গুলি, বোমা। পিঠে গুলি লাগে এক তৃণমূল কর্মীর। অভিযোগের তির কংগ্রেসের দিকে। আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীকে উদ্ধার করে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই রাত ১০টা নাগাদ মৃত্যু হয় ওই তৃণমূল কর্মীর। মৃতের নাম সানাউল্লা মিঞাঁ(৩২)। দেহ ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

হাবড়ায় ভোটের বলি ৩। সোমবার ভোট চলাকালীন হাবড়ার পৃথিবা গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যপাড়ায় বুথ দখলকে কেন্দ্র করে শাসক দলের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় বিজেপির। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, বুথ দখল করতে আসা সকলেই ছিল বহিরাগত। বুথ দখল করতে এলে বিরোধীরা একজোট হয়ে প্রতিরোধ করে। পরে তাতে যোগ দেয় গ্রামবাসীরাও।

ঘটনার তিন ঘণ্টা পরে পুলিশ উজ্জ্বল সুর (৩০) নামে এক তৃণমূল কর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার করে। আহত অবস্থায় আরও ৪ জনকে হাবড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে অবস্থার অবনতি ঘটলে সুশীল দাস নামে এক তৃণমূল কর্মীকে বারাসাত জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানেই আজ সকাল ৭টা নাগাদ মৃত্যু হয় সুশীল দাসের (৪৭)।

হাবড়া বেড়গুম ২ পঞ্চায়েতের তৃণমূল ব্লক প্রার্থী বিপ্লব সরকার গতকাল সন্ধ্যায় জামতলা স্কুলের সামনে বিজেপি কর্মীদের দ্বারা আক্রান্ত হন বলে অভিযোগ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে হাবড়া হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে সঙ্গে সঙ্গে বারাসাতের একটি বেসরকারি হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানেই গভীর রাতে বিপ্লব সরকারের (৩৬) মৃত্যু হয়েছে।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More