লাশ নিয়ে রাজনীতি করা দিদির পুরনো অভ্যেস, শীতলকুচির অডিও নিয়ে খোঁচা মোদীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অডিও টেপ শুক্রবার ফাঁস করেছিল বিজেপি। শনিবার পঞ্চম দফার ভোট যখন চলছে তখন আসানসোলের সভা থেকে সেই অডিও নিয়েই দিদির বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এদিন মোদী বলেন, “আপনারা শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে অডিও টেপটা শুনেছেন তো? একটা জায়গায় পাঁচ জনের দুঃখজনক মৃত্যু হল, আর দিদি কোচবিহারের তৃণমূল নেতাকে বলছেন মরদেহ নিয়ে র্যা লি করতে! ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতি করতে করতে কতটা নীচে নেমেছেন ভাবুন! এই নির্মমতাকে বাংলার মানুষ ছুড়ে ফেলে দিচ্ছেন প্রতিটি দফার ভোটে।”

এখানেই থামেননি প্রধানমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণের ঝাঁঝ আরও বাড়িয়ে মোদী বলেন, “লাশ নিয়ে রাজনীতি করা তো দিদির পুরনো অভ্যেস!”

শুক্রবার বিজেপি ওই অডিও টেপ ফাঁস করার পরে রাতেই সাংবাদিক সম্মেলন করে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে পাল্টা তোপ দেগেছিল তৃণমূল। ডেরেক ও ব্রায়েন, সুখেন্দু শেখর রায়রা সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন, পার্থপ্রতিম রায়কে ফোন করে কোনও অন্যায় করেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইসঙ্গে ফোন ট্যাপ করা নিয়েও বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছিলেন তৃণমূলের দুই রাজ্যসভার সাংসদ। এদিন গলসীর সভা থেকে মমতাও বলেছেন, এনিয়ে তিনি সিআইডি তদন্ত করাবেন।

অডিও টেপে শোনা যাচ্ছে, কোচবিহারের তৃণমূল জেলা সভাপতি পার্থপ্রতীম রায়কে মমতা বলছেন, “পার্থ মাথা ঠাণ্ডা করে ভোটটা করো, তার পর এর বিচার আমরা করব। ডেডবডিগুলো এখন রেখে দাও। কাল ডেডবডিগুলো নিয়ে ব়্যালি হবে। পরিবারগুলোকে বলবে কেউ ডেডবডি নেবে না”।
শীতলকুচির ঘটনা যেদিন ঘটে সেদিন শিলিগুড়িতে সভা করতে এসে মোদী বলেছিলেন, দিদির উস্কানিতেই এই ঘগটনা ঘটেছে। তাঁর কথায়, “দিদি প্রকাশ্য সভা থেকে দলীয় কর্মীদের ট্রেনিং দিয়েছেন কী ভাবে কীন্দ্রীয় বাহিনীকে পেটয়াতে হবে, ঘেরাও করতে হবে। দিদির উস্কানিতেই এই ঘটনা ঘটেছে।”

তারপর সেই শীতলকুচি কাণ্ড মিয়ে জল অনেক দূর গড়িয়েছে। এক্তিয়ার বহির্ভূত মন্তব্য করায় রাহুল সিনহাকে ৪৮ ঘণ্টা এবং দিলীপ ঘোষকে ২৪ ঘণ্টা প্রচারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল নির্বাচন কমিশন। ওডিও টেপের সূত্র ধরে এদিন মোদী বোঝাতে চান, তৃণমূলের এখন এমনই অবস্থা যে লাশ নিয়ে ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি করতে হচ্ছে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More