কমিশন ‘নিরপেক্ষ’ থাকুক, মমতার বিরুদ্ধে প্রচারে নিষেধাজ্ঞায় পাল্টা ট্যুইট স্ট্যালিনের, হারছে বিজেপি, হতাশারই প্রতিফলন, বললেন অখিলেশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জাতীয় নির্বাচন কমিশন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করেছে। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাওয়ের ডাক, সংখ্যালঘু ভোট ভাগ না হতে দেওয়ার আবেদন জানিয়ে ধর্মীয় লাইনে প্রচারের অভিযোগে নোটিসের পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূল নেত্রীর ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হতে না পেরে ২৪ ঘন্টা তাঁর প্রচার নিষিদ্ধ করেছে কমিশন। সোমবার রাত ৮টা থেকে মঙ্গলবার রাত আটটা পর্যন্ত ভোটপ্রচার করতে পারবেন না তিনি। এই ইস্যুতে কমিশনের নির্দেশের বিরুদ্ধে মমতাকে সমর্থন জানিয়ে ট্যুইট করলেন ডিএমকে প্রধান এম কে স্ট্যালিন। মমতা কমিশনের নির্দেশের প্রতিবাদে ময়দানে গাঁধী মূর্তির পাদদেশে অবস্থানে বসেছেন আজ সকালে। তার মধ্যেই স্ট্যালিনের সমর্থন ট্যুইট, যাতে তিনি বলেছেন, কমিশনের সব দলের জন্য সমান সুযোগের ব্যবস্থা করে নিরপেক্ষতা সুনিশ্চিত করা উচিত। অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচনের ওপর আমাদের গণতন্ত্রের প্রতি আস্থা, ভরসা টিঁকে রয়েছে বলেও অভিমত জানিয়েছেন তিনি। দলনেত্রীর বিরুদ্ধে কমিশন প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারির মতো চরম পদক্ষেপ করায় ক্ষুব্ধ তৃণমূলের পাল্টা তোপ, কমিশন বিজেপির শাখার মতোই আচরণ করছে, তাদের সিদ্ধান্তে একনায়কতন্ত্র প্রতিফলিত হয়েছে।

মমতার পাশে দাঁড়িয়ে সমাজবাদী পার্টি (সপা) সুপ্রিমো অখিলেশ সিংহ যাদবও ট্যুইট করেছেন, পশ্চিমবঙ্গে ভোটে হারছে বিজেপি। মমতা ব্যানার্জির প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি তাদের হতাশারই প্রতিফলন। সপা মমতার ধরনায় নৈতিক সমর্থন জানাচ্ছে। আশা করব, শ্মশান, কবরস্থান নিয়ে ধর্মীয় ভাগাভাগির লাইনে যারা প্রচার করে, তাদের ক্ষেত্রেও নিরপেক্ষ অবস্থান থেকে নিষেধাজ্ঞা জারি করবে কমিশন।

যদিও কমিশন শুধু মমতার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ করেই ক্ষান্ত থাকেনি। রাজ্য বিজেপির তিন শীর্ষ নেতা দিলীপ ঘোষ, শুভেন্দু অধিকারী, রাহুল সিনহার বিরুদ্ধে বিধিভঙ্গের অভিযোগে সক্রিয়   হয়েছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কাছে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি ঘটবে বলে বিতর্কিত মন্তব্যের জবাবদিহি তলব করেছে কমিশন। কাল সকাল ৮টা পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে তাঁকে। শীতলকুচি নিয়ে মন্তব্যের জন্য প্রাক্তন বিজেপি রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহার বিরুদ্ধে ভোটপ্রচারে ৪৮ ঘন্টার নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারীকে সাম্প্রদায়িক ইঙ্গিতবাহী মন্তব্যের অভিযোগে সাবধান করেছে কমিশন। অর্থাত্ ডিএমকে সুপ্রিমো কমিশনের আচরণে যে পক্ষপাতহীনতা প্রত্যাশা করেছেন, বাস্তবে কমিশন তারই পরিচয় দিয়েছে তিন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধেও কড়া মনোভাব দেখিয়ে, এমনটাই  মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

প্রসঙ্গত, তামিলনাড়ুতে বিধানসভা ভোট হচ্ছে এবার। সেখানে কংগ্রেসের হাত ধরেছেন স্ট্যালিন। আবার যে মমতার পাশে দাঁড়িয়ে আজ ট্যুইট করলেন তিনি, তাঁর বিরুদ্ধেই বাম ও আইএসএফকে সঙ্গে নিয়ে জোট করে ভোটে লড়ছে কংগ্রেস।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More