মাদক সংক্রান্ত হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের অ্যাডমিন দীপিকা! তদন্তে নতুন মোড়

দ্য ওয়াল ব্যুরোঃ বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে মাদক যোগের অভিযোগে একের পর এক অভিনেত্রীর নাম সামনে এসেছে। দীপিকা পাড়ুকোন, সারা আলি খান, শ্রদ্ধা কাপুর ও রকুলপ্রীত সিংকে সমন করেছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। ইতিমধ্যেই রকুলপ্রীত গিয়ে হাজিরা দিয়েছেন এনসিবি দফতরে। এর মধ্যেই এক চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এল। বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন শুধুমাত্র মাদক সংক্রান্ত কথা বলেছেন তাই নয়, তিনি নাকি ওই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের অ্যাডমিন। আর এই ঘটনা সামনে আসায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বলিউডে।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এই খবর জানিয়েছে। সংবাদমাধ্যমে দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, এনসিবির এক কর্তা নাকি জানিয়েছেন, যে হোয়াটসঅ্যাপের তথ্য ধরে এই তদন্ত শুরু হয়েছে, সেই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যথেষ্ট সক্রিয় ছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন। শুধু মাদক নিয়ে কথা বলাই নয়, দীপিকা নাকি ওই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের অ্যাডমিনও ছিলেন। তদন্তকারী আধিকারিকদের ধারণা, অ্যাডমিন হওয়ার সুবাদে ওই গ্রুপে কী ধরনের কথাবার্তা হত, তার সম্বন্ধে স্পষ্ট ধারণা ছিল দীপিকার।

জানা গিয়েছে, শনিবার দীপিকা এনসিবি দফতরে হাজিরা দিলে সেখানে এই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের বিষয়ে তাঁকে জেরা করা হবে। এই কথোপকথনে তাঁর ভূমিকার বিষয়ে জেরা করা হবে দীপিকাকে। শোনা গিয়েছিল দীপিকার সঙ্গে জেরার সময় থাকতে চেয়েছিলেন দীপিকার স্বামী রণবীর সিং। দীপিকার প্যানিক অ্যাটাকের সমস্যা থাকার জন্য এই বিষয়ে আবেদন করেছিলেন তিনি। কিন্তু রণবীরের দাবি মেনে নেয়নি এনসিবি। দফতরে এলেও জেরার সময় একাই থাকতে হবে দীপিকাকে।

শনিবার এনসিবি দফতরে হাজিরা দেওয়ার কথা আরও দুই অভিনেত্রী সারা আলি খান ও শ্রদ্ধা কাপুরেরও।

শুক্রবারই জেরা করা হয়েছে অভিনেত্রী রকুলপ্রীত সিংকে। তিনি নাকি জেরায় জানিয়েছেন, রিয়ার সঙ্গে মাদক নিয়ে আলোচনা হয়েছিল তাঁর। রিয়া নাকি নিজের জন্যই তাঁর সঙ্গে মাদক নিয়ে কথা বলেছিলেন। কিন্তু নিজে কোনও দিন মাদক নেননি বলেই দাবি করেছেন রকুলপ্রীত।

অন্যদিকে এদিন দীপিকার ম্যানেজার করিশ্মা প্রকাশকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এনসিবি। সেইসঙ্গে করণ জোহরের সংস্থা ধর্মা প্রোডাকশনের এগজিকিউটিভ ডিরেক্টর ক্ষিতিশ প্রসাদের বাড়িতেও এদিন হানা দেয় এনসিবি। ধর্মা প্রোডাকশনের সহকারী পরিচালক অনুভব চোপড়াকেও জেরা করেছে এনসিবি।

২০১৭ সালের একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট সামনে এসেছে এনসিবি-র কাছে, যেখানে ডি নামক অ্যাকাউন্ট থেকে কে অ্যাকাউন্টে মেসেজ গেছে ‘..মাল আছে কি?’ কে উত্তর দিয়েছে ‘আছে কিন্তু বাড়িতে। আমি এখন বান্দ্রার…’ কে ফের বলেছে ‘আমি অমিতকে জিজ্ঞেস করতে পারি যদি তুমি চাও’ এর উত্তরে ডি বলেছে, ‘হ্যাঁ দয়া করে বলো’ । এনসিবি-র অনুমান এই ডি আসলে দীপিকা এবং কে হল করিশ্মা।

প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতকে মাদক সরবরাহের অভিযোগে ইতিমধ্যেই তাঁর বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করেছে এনসিবি। ধরা পড়েছে রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তী ও অভিনেতার বান্দ্রার ফ্ল্যাটের ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডাও। এই তদন্তের জাল ক্রমেই বাড়াচ্ছে এনসিবি। এর মধ্যেই এবার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের অ্যাডমিন হিসেবে দীপিকার নাম সামনে আসায় তদন্তের একটা নতুন দিক খুলে গেল বলেই মনে করছেন তদন্তকারী অফিসাররা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More