নবরাত্রি নিয়ে কুরুচিকর মিম! ‘এরস নাও’ বয়কটের ডাক নেটিজেনদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নবরাত্রি উপলক্ষ্যে কিছু মিম প্রকাশ করেছিল বলিউডের প্রযোজনা সংস্থা এরস নাও। এই মিমগুলির প্রধান চরিত্রে ছিলেন বলিউডের নায়ক-নায়িকরা। মূলত নবরাত্রির প্রত্যেক দিনে কী ধরনের পোশাক পরা যেতে পারে বা স্টাইল ফলো করা যেতে পারে তা নিয়েই ছিল এই মিম। কিন্তু এই মিমে বেজায় চটেছেন নেটিজেনদের একাংশ। তাঁদের বক্তব্য কুরুচিকর মিম বানিয়ে একট উৎসবকে ছোট করার চেষ্টা করেছে এরস নাও। আর তাই এই প্রযোজনা সংস্থা বয়কটের ডাক দিয়েছেন তাঁরা। চাপে পড়ে নিজেদের পোস্ট মুছতে বাধ্য হয়েছে এরস নাও। সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষমাও চেয়েছে তারা।

সম্প্রতি এরস নাও-এর তরফে যে মিমগুলি প্রকাশ করা হয়েছিল সেখানে দীপিকা পাডুকোন, করিনা কাপুর খান, ক্যাটরিনা কাইফ, ঐশ্বর্যা রাই বচ্চন, সলমন খানরা ছিলেন। তাঁদের সিনেমার কিছু আইকনিক চরিত্রকে তুলে এনেছিল এরস নাও। যেমন দীপিকার ‘মস্তানি’, ঐশ্বর্যার ‘দেবদাস’ কিংবা ক্যাটরিনার ‘দে দনা দন’ ছবির লুক ব্যবহার করে এই মিমগুলি বানানো হয়েছে।

এই মিমেই চটেছেন নেটিজেনদের একাংশ। তাঁদের অভিযোগ, এই ধরনের মিম বানিয়ে নবরাত্রির মতো উৎসবের মজা করা হয়েছে। নবরাত্রিকে অপমান করা হয়েছে। অনেকে তো এও বলেন, এই মিমের মাধ্যমে হিন্দুধর্মের অপমান করেছে এরস নাও। এর পিছনে সহজে প্রচার পাওয়ার চেষ্টা ছাড়া আর কিছুই নেই বলে অভিযোগ তাঁদের।

এরস নাও-এর বিরুদ্ধে শুরু হয়ে ক্ষোভ। সবাই এই প্রযোজনা সংস্থাকে বয়কট করার ডাক দেন। ‘বয়কট এরস নাও’ হ্যাশট্যাগ ট্রেন্ডিং হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ক্রমাগত তা বাড়তেই থাকে। অনেকে তো তাদের সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে গিয়ে রিপোর্ট করারও ডাক দেন। বাধ্য হয়ে এরস নাও-এর তরফে ছবিগুলি তুলে নেওয়া হয়। এমনকি ক্ষমাও চাওয়া হয় তাদের তরফে।

প্রযোজনা সংস্থা জানায়, “আমরা আমাদের সংস্কৃতিকে সমানভাবে ভালবাসি ও শ্রদ্ধা করি। কারও মনোভাবকে আঘাত করার কোনও ইচ্ছে আমাদের কোনওদিন ছিল না, আজও নেই। যে কয়েকটি পোস্ট ঘিরে বিক্ষোভ হয়েছিল সেগুলি আমরা তুলে নিয়েছি। যদি আমরা কারও ভাবাবেগে আঘাত করে থাকি, তার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More