পেদো সুদীপের যেন বিশ্বাসই হচ্ছে না! জরাজীর্ণ ভাড়াবাড়ি থেকে মন্দারের লাইমলাইট

0

শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্প্রতি সোশ্যাল নেটওয়ার্কে যা যা নিয়ে চর্চা তুঙ্গে, তার অন্যতম হল ‘মন্দার’। শেক্সপিয়রের ‘ম‍্যাকবেথ’-এর নির্যাস নিয়ে তৈরি অনির্বাণ ভট্টাচার্য পরিচালিত ওয়েবসিরিজ। আদিম যৌনতা, লোভ, মোহর খেলা যেন এই গল্প। কেউ চায় রাজা হতে, কেউ রাজার পিতা, কেউ চায় সন্তান, কেউ চায় সন্তানের মঙ্গল, কেউ চায় ক্ষমতা। আর এসবের মাঝে সিনেমার পটভূমি গেইলপুরের লোকেদের ভাগ্য নির্ধারণ করে ডাইনি এক বুড়ি মজনু, তার ন্যাড়া ছেলে পেদো ও তাদের পোষ‍্য বেড়াল কালা।

ম্যাকবেথে যেমন অতি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র ছিল তিন ডাইনি, এখানেও তাই। সজল মণ্ডল ও সুদীপ ধাড়া অভিনয় করেছেন মজনু বুড়ি ও পেদোর চরিত্রে। সিরিজের সম্পদ তারা। বাংলা অভিনয়ের নতুন নক্ষত্র।

বাস্তবজীবনের সংগ্রামের ছবিই ফুটেছে অভিনয়ের দর্পণে

এতদিন এই দুই অভিনেতাকে সেভাবে মানুষ না চিনলেও, ‘মন্দার’-এর পর এই দুটি চরিত্র সবথেকে আলোচনায়। তবে মজনু বুড়ি আর পেদো আজ যতই লাইমলাইটে থাক, এই দুই চরিত্রের পেছনে থাকা দুই লড়াকু থিয়েটারশিল্পীর জীবনযুদ্ধের গল্পও কিন্তু কম রোমহর্ষক নয়। এমন দুটি বর্ণময় চরিত্র করতে কোথা থেকে এলেন তাঁরা!May be an image of 1 person, standing and outdoorsথিয়েটার থেকে উঠে আসা এই দুটো মানুষের বাস্তব জীবনের পরতে পরতেও জড়িয়ে আছে নানা সংগ্রাম। তাই হয়তো ওঁরা এমন অনবদ্য হয়ে উঠেছেন চরিত্রের আয়নায়!

পেদো সুদীপ আর মজনু সজল, মন্দারের নক্ষত্র তাঁরা, বাংলা অভিনয়ের সম্পদ

অভিনেতা সুদীপ ধাড়া নিজেই জানালেন তাঁর পেদো হয়ে ওঠার কাহিনি। শূন্য থেকে শুরু করে লাইমলাইট স্পর্শ করার এ যাত্রাও কোনও সিনেমা-থিয়েটারের চেয়ে কম টানটান নয়! পরিচালক অনির্বাণ ভট্টাচার্য সুদীপকে বলেছিলেন, ‘তুই কি লাঠি দিয়ে টায়ার ঘোরাতে পারিস আর সাঁতার কাটতে পারিস?’ সুদীপ বলেছিল ‘পারি’। কে জানত, ছেলেবেলায় বন্ধুদের সঙ্গে টায়ার ঘোরানোর খেলা তাকে সারা বিশ্বে আলোচিত করে তুলবে! তখনও সে জানতই না, তার জন্য অপেক্ষা করছে ম্যাকবেথের একটি স্বপ্নের চরিত্র।

জরাজীর্ণ ভাড়াবাড়িতে বাস, তবু নাটকশিক্ষা শুরু মাত্র ৪ বছর বয়সে

উত্তর কলকাতার বিডন স্ট্রিটের এক জরাজীর্ণ ভাড়া বাড়িতে থাকেন সুদীপ ধাড়া। সেখানেই কেটেছে ছেলেবেলা। সুদীপের বাবা আগে ব্যবসা করতেন, সেটা উঠে যেতে এখন ছোট একটা চাকরি করেন। অভাবের সংসারে তবু ছেলেকে পড়িয়েছেন স্কটিশ চার্চ কলেজিয়েট স্কুল থেকে। তার পর সুদীপ বিকম পাশ করেছে।

ডাইনি বুড়ির হেলদোল নেই কোনও, খ্যাতি পেয়েও খাদে পড়েছিলেন সজল

তবে অভাবের মাঝেও আলো পেয়েছে প্রতিভা। ছোটবেলা থেকেই খুব কথা বলত সুদীপ। বলতে গেলে সে জন্যই চার বছর বয়স থেকে শুরু নাটকের তালিম। তবে কুড়ির কোঠায় এসে সুদীপ বোঝেন, শুধু নাটক করে জীবনযুদ্ধে টিকে থাকা যাবে না। তাই পাশাপাশি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখেও কাজ শুরু করেন তিনি। পসার জমেনি সেখানে। তবু বাবা-মার নিরন্তর সহযোগিতা আর নাট্যদল ‘বিডন স্ট্রিট শুভম’ সুদীপকে করে তুলেছে আজকের পেদো।Mandaar: গেইলপুরের রাজা হয়ে উঠতে পারবে 'মন্দার'? ট্রেলারেই প্রত্যাশা বাড়ালেন পরিচালক অনির্বাণ - Mandaar Web Series directorial debut of anirban bhattacharya starring sohini and ...

অনির্বাণের সঙ্গে সেই প্রথম নাটক আজও বাকি

মির্নাভা থিয়েটারের কাছেই ‘শুভম’ নাট্যদল। এখানেই একদিন অনির্বাণ ভট্টাচার্য তাঁর নাটকের জন্য এসেছিলেন, এক কিশোর অভিনেতার খোঁজে। অনির্বাণ তখন এমএ পড়ছেন, স্টার হয়ে ওঠেননি। সেখানে তিনি তখনই বেছে নেন সুদীপকে। যদিও সে নাটক আর বাস্তবায়িত হয়নি। কিন্তু এতদিন পরে মন্দার হল। তাতেই সেই সুদীপ পেদোর রোল করে আজ সকলের চর্চায়। তাবড় অভিনেতাদের মাঝেও সবথেকে জুনিয়র, রোগা-পাতলা, ২৫ বছরের সুদীপ আজ স্টার।

এখানে দর্শক গ্রিনরুমে ঢুকে পড়ে, যা কোনও সভ্য দেশে হয় না: অনির্বাণ

তবে অনির্বাণের সঙ্গে সেই প্রথম যে নাটকটা সুদীপের হয়নি, সেটা তিনি আজও ভোলেননি। তাই অনির্বাণকে দেখলেই বলেন, “অনির্বাণদা তোমার সঙ্গে প্রথম সেই নাটকের কাজটা কিন্তু এখনও বাকি আছে!” তবে অনির্বাণের কাজ বরাবরই প্রিয় সুদীপের। বহুবার বাড়ির কাছে মিনার্ভা থিয়েটারে অনির্বাণের নাটক দেখতে যেতেন তিনি। সেখানেও যোগাযোগ বজায় ছিল। এই মিনার্ভাতেই আবার সুমনা মুখোপাধ্যায় অভিনয় করতেন, যিনি মন্দারে ডাবলু ভাই দেবেশ রায়চৌধুরীর স্ত্রীর রোলে অভিনয় করেছেন।Mandaar (TV Series 2021– ) - IMDb

এত আলোচনা আমায় নিয়ে! অবিশ্বাস্য!

সুদীপ বললেন, “আমার যা রোগা-পাতলা চেহারা, তাতে আমার পক্ষে কোনও নায়ক বা ভিলেন চরিত্র কখনও পাওয়া সম্ভব হতো না। যদিও আমি নাটকের ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে উঠে এসেছি। আমি অনির্বাণদার কাছে কৃতজ্ঞ এমন একটা ডাইনি পেদোর চরিত্রে আমায় কাস্ট করার জন্য। আমি তো এখনও বিশ্বাসই করতে পারছি না, যে আমার মতো অনামী একটা ছেলেকে নিয়ে লোকে এত আলোচনা করছে।”

সুদীপ যে ‘শুভম’ নাট্যদলের সদস্য, তার সবচেয়ে বড় প্রোডাকশন ‘সব চরিত্র কাল্পনিক’। তাতেও সুদীপ অভিনয় করেছিলেন। ‘কাজলরেখা’ নাটকও করেছেন তিনি। শুভাশিস গঙ্গোপাধ্যায়ের পরিচালনায় ‘নটীর পূজা’তেও কাজ করেছেন শুভম নাট্যদলে। বারবারই প্রশংসিত হয়েছিল তাঁর অভিনয়। তবে কোভিডের কারণে আগামী প্রোডাকশনের কাজ বেশ কিছুদিন বন্ধ আছে।

জীবন দিয়ে গড়েছি পেদোকে

সুদীপ বলছিলেন, “মন্দার আমার প্রথম ওয়েবসিরিজ নয়। এর আগে দেবালয় ভট্টাচার্যর ‘বৌ কেন সাইকো’ আর ‘মন্টু পাইলট’-এ সৌরভ দাসের বন্ধুর চরিত্র করি। তবে পেদো সকলের চেয়ে আলাদা। চরিত্রটার অদ্ভুত বডি ল্যাঙ্গুয়েজ, লাফঝাঁপ দিয়ে হাঁটা, নাচ করা– এসব অনির্বাণদা আমাকে আমার মতো করেই করতে বলেছিল। এই যে ছবিতে আমার কিম্ভূতকিমাকার হাঁটার স্টাইল নিয়ে লোকে এত চর্চা করছে, সেটা আমি বিডন স্ট্রিটেই কোনও এক বাচ্চা ছেলেকে হাঁটতে দেখেছিলাম। কলকাতা শহরের সেই সব দেখা, দৃশ্য, উপকূল অঞ্চলের লোকরা করলে কেমন হবে সেইটা ভেবে নিজে নিজেই সব করেছি ছবিতে। যা করতাম, সারা লকডাউন জুড়ে অনির্বাণদাকে ভিডিও করে করে পাঠিয়েছি। কোনওটা বলত ভাল, কোনওটা বলত বাদ। এভাবেই জীবন থেকে গড়েছি পেদোকে।”মন্দার'-এর শ্রেষ্ঠ প্রাপ্তি তিন ডাইনির বঙ্গীকরণ, ক্লাসিক সাহিত্যে জায়গা পেল গ্রামের ভাষা

থিয়েটারকে কেউ ডমিনেট করতে পারে না: অনির্বাণ ভট্টাচার্য

ম্যানারিজমের পাশাপাশিই মন্দারে পেদোর বিশেষত্ব হল ছড়া এবং গেইলপুরের ভাষায় বলা সংলাপ। এর কৃতিত্ব অবশ্য পুরোপুরি চিত্রনাট্যকার প্রতীক রায়কে দিতে চান সুদীপ। একই সঙ্গে মনে করিয়ে দিলেন, “আমার অভিনয় আরও প্রাণ পেয়েছে সোমনাথদার মেকআপের গুণে। যেদিন প্রথম লুক টেস্ট ছিল, সেদিন প্রথমেই আমার মাথা ন্যাড়া করে শুধু একটা ন্যাঙোট পরিয়ে খুব নোংরা দেখতে লাগার মতো প্রস্থেটিক মেক আপ করানো হল। নিজেকে দেখে নিজেই চমকে গেছিলাম। কিন্তু আমরা থিয়েটারের ছেলেরা তো সব করতে পারি।”Mandaar Review: Hoichoi Hits Bullseye With This Bleak, Blistering Drama

তাবড় অভিনেতাদের মাঝে জুনিয়র পেদো আজ স্টার

তাবড় অভিনেতাদের মাঝে জুনিয়র পেদোও আজ স্টার। সুদীপ বলছেন “আমাকে নিয়ে লোকে এত আলোচনা করছে, সেটা আমার চোখের সামনে ঘটছে এটা আমার কাছে একটা অভূতপূর্ব বিষয়। আমি এখনও অবিশ্বাস্য দুনিয়ায় ভাসছি। দায়িত্ব আরও বাড়ল। নতুন আরও দুটো ওয়েবসিরিজে কাজ করছি এখন।”

‘আমার শিল্পবোধটা একান্তই আমার, সেটা আমাকেই গড়ে তুলতে হবে’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.