কয়লা কেলেংকারিতে কারাদণ্ডিত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ১৯৯৯ সালে ঝাড়খণ্ডে কয়লা ব্লক বন্টনে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছিল। দুর্নীতির মামলায় অক্টোবরের শুরুতেই দোষী সাব্যস্ত হয়েছিলেন বাজপেয়ী মন্ত্রিসভার কয়লা মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী দিলীপ রায়। সোমবার তাঁর তিন বছরের কারাদণ্ড হল। বিশেষ সিবিআই আদালত তাঁকে ওই শাস্তি দেয়। প্রাক্তন মন্ত্রী বাদে আরও দু’জন ওই মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। তাঁদের দণ্ডাদেশ এখনও ঘোষণা করা হয়নি।

দুর্নীতি দমন আইনের বিভিন্ন ধারায় দিলীপ রায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। এর আগে গত ১৪ অক্টোবর ওই মামলার শুনানি হয়। বিশেষ বিচারক ভরত পরাশর সিবিআই এবং অভিযুক্তের পক্ষের বক্তব্য শোনেন। তারপর রায়দান স্থগিত রাখেন ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত।

শুনানির সময় সিবিআই বলেছিল, প্রাক্তন মন্ত্রী দিলীপ রায়ের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হওয়া উচিত। কারণ তিনি সরকারি পদে থেকে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। সমাজের উঁচুতলার ব্যক্তিদের দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ার প্রবণতা বাড়ছে। তাই প্রাক্তন মন্ত্রীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার।

সিবিআইয়ের হয়ে সওয়াল করেন ভি কে শর্মা এবং এ পি সিং। তাঁরা ওই দুর্নীতিতে জড়িত দুই সরকারি অফিসার প্রদীপ কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় ও নিত্যচাঁদ গৌতম এবং কাসট্রন টেকনোলজিস লিমিটেড নামে এক সংস্থার ডিরেক্টর মহেন্দ্র কুমার আগরওয়ালের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চান।

অভিযুক্তরা বিচারকের কাছে আবেদন জানান, তাঁরা বৃদ্ধ হয়েছেন। এর আগে কোনও অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হননি। তাই আদালত যেন তাঁদের কঠোর শাস্তি না দেয়।

চলতি বছরের মাঝামাঝি দুর্নীতির অভিযোগে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর নাম জড়ায়। তিনি হলেন গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত। অভিযোগ, শেখাওয়াত ক্রেডিট সোসাইটি কেলেংকারিতে জড়িত ছিলেন। গতবছর সঞ্জীবনী ক্রেডিট কো-অপারেটিভ সোসাইটির কেলেংকারিতে কয়েক হাজার বিনিয়োগকারী ক্ষতিগ্রস্ত হন। তাঁদের মোট ৯০০ কোটি টাকা লোকসান হয়েছিল। অভিযোগ, শেখাওয়াত, তাঁর স্ত্রী ও আরও কয়েকজন ওই কেলেংকারিতে জড়িত ছিলেন।

২০১৯ সালের অগাস্ট থেকে ওই মামলায় পুলিশ তদন্ত করছে। পুলিশ এখনও অবধি যে চার্জশিট দিয়েছে, তাতে শেখাওয়াতের নাম নেই। পরে চার্জশিটে তাঁর নাম উল্লেখ করার জন্য আদালতে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা আবেদন করেছিলেন। কিন্তু বিচারক আবেদন নাকচ করে দেন। পরে আবেদনকারীরা জয়পুরের অ্যাডিশনাল ডিস্ট্রিক্ট জাজেস কোর্টে যান। সেখানে বিচারক নির্দেশ দেন, শেখাওয়াতের বিরুদ্ধেও তদন্ত করতে হবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More