ঘুরে আসুন গুজরাতের মন্দিরগুলো থেকে, রইল ঠিকানা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গতবছর লকডাউন, করোনার কারণে সেভাবে কেউই বাড়ির বাইরে বের হতে পারেননি। এবার যদি ছুটিছাটা ম্যানেজ করে বের হওয়ার সুযোগ পান, তাহলে ঘুরে আসতে পারেন গুজরাত থেকে। এক কথায় গুজরাতের সৌন্দর্য আপনাকে মুগ্ধ করবেই। এখানে যেমন রয়েছে উদ্যান, তেমন এখানকার মন্দিরগুলোও ধরে রেখেছে দেশের শিল্পকলা, ও ঐতিহ্যকে।

সোমনাথ মন্দির, সোমনাথ

এটি গুজরাতের অন্যতম প্রধান পর্যটন কেন্দ্র। অনেকেই দূরদূরান্ত থেকে তীর্থ করতে আসেন এখানে। এটি মূলত শিবের মন্দির। ভারতে যে ১২টি শিবের জ্যোতির্লিঙ্গের মন্দির রয়েছে তার মধ্যে একটি হল সোমনাথ মন্দির। এর বিশাল স্থাপত্য ও কারুকার্য ভ্রমণপ্রেমী মানুষদের ভীষণই আকর্ষণ করে। বর্তমানে যে মন্দিরে দর্শনার্থীরা আসেন সেটা তৈরি হয় ১৯৫০ সালে।

সূর্যমন্দির, মধেরা

গুজরাতের অন্যতম চমকপ্রদ মন্দির হল মধেরার সূর্য মন্দির। এই মন্দিরের বিশেষত্ব হল এটা এমন ভাবে বানানো হয়েছে যে সূর্যের রশ্মি গিয়ে সরাসরি মন্দিরের সূর্যচক্রের ওপরে পড়ে। সোলাঙ্কি রাজ্যের রাজা ভীমদেব একাদশ শতাব্দীতে এই মন্দিরটি বানান। আহমেদাবাদ থেকে ১০৬ কিমি দূরে পাহাড়ের কোলে রয়েছে এই মন্দিরটি। এই মন্দির পর্যটকদের কাছে অন্যতম প্রিয় জায়গা।

রুক্মিনী মন্দির, দ্বারকা

দ্বারকাতে গেলে অবশ্যই রুক্মিনী মন্দির দেখবেন। এই মন্দিরটি শ্রীকৃষ্ণের স্ত্রী রুক্মিনীর উদ্দেশ্যে বানানো হয়। দ্বাদশ শতাব্দীতে এই মন্দির বানানো হয়েছিল বলে মনে করে হয়।

দ্বারকাধিশ মন্দির, দ্বারকা

দ্বারকার এই মন্দিরটা জগৎ মন্দির নামেই পরিচিত। এটি অন্যতম ধর্মীয় কেন্দ্র। বিখ্যাত চারধাম যাত্রার অন্যতম ধাম হল এটি। এই মন্দিরকেই স্বর্গের দ্বার বলা হয়। অনেকেই একে মোক্ষদ্বারও বলেন। রেকর্ড অনুসারে, মন্দিরটি ২৫০০ বছরেরও বেশি পুরনো।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More