নন্দীগ্রামে মমতা হারলেই বাংলায় পরিবর্তন নিশ্চিত: শুভেন্দুকে পাশে নিয়ে অমিত শাহ

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নন্দীগ্রামে প্রচারে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ অতগুলো গাড়ি নিয়ে কেন ঢুকেছেন মঙ্গলবার সেই প্রশ্ন তুলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সে তর্ক অবশ্য ভিন্ন। আপাত দর্শনে দেখা গেল, নন্দীগ্রামের ভেটুরিয়া মোড় থেকে রেয়াপাড়া পর্যন্ত কালো মাথার ভিড়। শুভেন্দু অনুগামী তথা বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উন্মাদনাও ছিল চোখে পড়ার মতোই।

দৃশ্যতই উজ্জীবিত শুভেন্দু অধিকারী। উৎসাহী অমিত শাহও। রোড শো শেষ করার পর সংক্ষিপ্ত সাংবাদিক বৈঠকে যিনি বললেন, “আমার একটাই কথা। বাংলার মানুষ আসল পরিবর্তনের জন্য আকুল। সেই পরিবর্তন আনার কাজ খুব সহজ হয়ে যাবে যদি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রামে পরাস্ত হন। মমতা দিদি এখানে হারলেই বাংলায় পরিবর্তন নিশ্চিত।”

পূর্ব মেদিনীপুরের এই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হবে পরশু ১ এপ্রিল। তার আগে এদিন শেষবেলার প্রচারে নন্দীগ্রাম ছিল জমজমাট। সোনাচূড়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো ভেটুরিয়ায় অমিত শাহ-শুভেন্দু।

পরে সাংবাদিক বৈঠকে অমিত শাহ বলেন, “আমার বিশ্বাস নন্দীগ্রামে বড় ব্যবধানে জিতবেন শুভেন্দু। আমি আপনাদেরও বলছি, শুভেন্দু বিপুল ব্যবধানে জেতান। এতটাই ব্যবধান হয় যাতে মা-মাটি-মানুষকে ধোঁকা দেওয়ার সাহস ভবিষ্যতে আর কেউ যেন না দেখায়।”

সোমবার রাতে নন্দীগ্রামে স্থানীয় এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এদিন সেই প্রসঙ্গও টেনে আনেন অমিত শাহ। বলেন, “বাংলায় মেয়েরা নিরাপদ নয়। একদিকে অশীতিপর বৃদ্ধাকে নির্মম ভাবে মারা হচ্ছে। অন্যদিকে বাংলার মেয়ের লাঞ্ছনার ঘটনা ঘটছে। বাংলা অপরাধ মুক্ত স্বচ্ছ প্রশাসন চায়। সে জন্যই বাংলায় আসল পরিবর্তন জরুরি।”

নন্দীগ্রামে ভোটের আগে স্থানীয় উন্নয়নের লক্ষ্যে বেশ কিছু প্রতিশ্রুতি ঘোষণা করেছেন শুভেন্দু। যেমন প্রতিটি পঞ্চায়েত এলাকায় একটি স্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ে তোলা। প্রতিটি ব্লকে একটি পলিটেকনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা। গোকুলনগরে সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পত্তন। দুটি ব্লকে দুটি মহিলা কলেজ গড়ে তোলা ইত্যাদি।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.