ফের কোভিড হাসপাতালে আগুন, দিল্লিতে দমকলের তৎপরতায় প্রাণরক্ষা ১৭ রোগীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ফের কোভিড হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ড। এবার দিল্লিতে। গতকাল রাত ১১টা নাগাদ পশ্চিম দিল্লির বিকাশপুরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে আচমকাই আগুন লাগে। তড়িঘড়ি দমকলে খবর পাঠানো হয়। কিছুক্ষণের মধ্যে দমকলকর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। এখনও পর্যন্ত দুর্ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর মেলেনি।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, গ্রাউন্ড ফ্লোরের স্টোর রুমে শর্ট সার্কিটের জেরে এই বিপত্তি। উল্লেখ্য, নীচের তলায় সেই মুহূর্তে বেশ কয়েকজন করোনা রোগী ভর্তি ছিলেন। ঘটনাস্থলে এসেই উদ্ধারকারী দল আগুন নেভানোর কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ে। মোট ৮টি দমকলের ইঞ্জিন মোতায়েন করা হয়।

Fire at W Delhi Covid hosp; search on to shift patients

অন্যদিকে ঘটনার ভিডিও ফুটেজ কিছুক্ষণের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে দেখা যায় তৎপর চিকিৎসক ও নার্সদের ছোটাছুটি। কেউ করোনা রোগীদের শান্ত থাকার অনুরোধ জানাচ্ছেন। আবার কেউ কেউ রোগীদের নিরাপদ কেবিনে নিয়ে যাচ্ছেন। দমকলকর্মীদেরও হাত লাগাতে দেখা যায়। তাঁরাও হুইলচেয়ারে করে আক্রান্তদের অন্যত্র নিয়ে যেতে সাহায্য করেন। আবার রোগীদের আত্মীয়স্বজনও যে যার মতো আগুন নেভাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

কর্তৃপক্ষের দাবি, অগ্নিকাণ্ডে কেউ হতাহত হননি। মোট ২৬ জন রোগীকে অন্য হাসপাতালে সরানো হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১৭ জন করোনা আক্রান্ত ছিলেন বলে খবর।

Of a 'Yug Purush' Prime Minister and the Sufferings of Mortals in the  Pandemic

ভয়াবহ বিপর্যয় এড়ানো গেলেও গতকাল দিল্লির এই দুর্ঘটনা ফের একবার স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর গলদ চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল। কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ যত এগোচ্ছে, ততই চোখ ছড়াচ্ছে সংক্রমণের আঁচ। বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। কোভিড রোগীদের নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলি। গুরুতর আক্রান্তদের ফেরাতে না পেরে ভর্তি করা হচ্ছে ঠিকই। কিন্তু অতিরিক্ত রোগীভর্তির চাপ সুরক্ষার ফাটলকে আরও চওড়া করছে।

বিগত কয়েক মাস ধরে লাগাতার একের পর কোভিড হাসপাতালে আগুন লেগেছে। দিন তিনেক আগেও গুজরাতের ভারুচের একট আগুনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের খবর সামনে আসে। ঘটনায় চিকিৎসারত ৫০ জন আক্রান্তের মধ্যে দমবন্ধ হয়ে ১৮ জন কোভিড রোগীর মৃত্যু হয়। গত সপ্তাহে থানের একটি হাসপাতালেও আগুন লেগে ৪ জন করোনা আক্রান্ত প্রাণ হারান।

Hospital fire kills 18 virus patients as India steps up jabs | The Star

বিশেষজ্ঞদের মধ্যে, কমবেশি সমস্ত দুর্ঘটনার প্রধান কারণ বিদ্যুৎ বিপর্যয় কিংবা যান্ত্রিক ত্রুটি। কোথাও শর্ট সার্কিট, কোথাও বা চূড়ান্ত অব্যবস্থার জেরে আগুন লেগেছে। রোগীর চাপ সামলাতে মহারাষ্ট্রের মতো একাধিক জায়গায় মল কিংবা স্টেডিয়ামকে হাসপাতালের চেহারা দেওয়া হয়েছে ঠিকই। কিন্তু কোভিড সেন্টারের প্রয়োজনীয় আয়োজন করা হয়নি। যার জেরে প্রশ্নের মুখে আক্রান্তদের সুরক্ষা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More