রাজীব প্রসঙ্গে নরম ববি, বললেন ‘ও আমার আমার ছোট ভাইয়ের মতো’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলা বিজেপিতে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরে জল্পনা সপ্তমে উঠেছে। একদিকে রাজীবের ফেসবুক পোস্ট অন্যদিকে তাঁকে হারানো ডোমজুড়ের বিধায়ক কল্যাণ ঘোষের বক্তব্যে যখন চাপানউতোর বেশ চড়া দাগে গিয়েছে তখন তাত্‍পর্যপূর্ণ মন্তব্য করলেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

এদিন ববি হাকিম বলেন, ‘‘রাজীব আমার ছোট ভাইয়ের মতো। কেন ওর এমনটা হল, কেন ও বিজেপি-তে গেল, এটা আমার কাছে এখনও অবাক লাগে। যাওয়ার আগের আগের দিনও ওঁর সঙ্গে কথা হয়েছিল। শেষ মন্ত্রিসভার বৈঠকের দিনেও আমি ফোন করেছিলাম। কিন্তু দেরিতে হলেও, যদি বোধোদয় হয়, তা হলে সেটা ভাল লক্ষণ।’’

দুদিন আগেই রাজীবের পোস্ট নিয়ে শোরগোল পড়ে যায় বঙ্গ রাজনীতিতে। নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীর উদ্দেশে রাজীব তোপ দেগে ফেসবুকে লেখেন, “‘সমালোচনা তো অনেক হল… মানুষের বিপুল জনসমর্থন নিয়ে আসা নির্বাচিত সরকারের সমালোচনা ও মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধিতা করতে গিয়ে কথায় কথায় দিল্লি আর ৩৫৬ ধারার জুজু দেখালে বাংলার মানুষ ভাল ভাবে নেবে না। আমাদের সকলের উচিত রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে কোভিড ও ইয়াস, এই দুই দুর্যোগে বিপর্যস্ত বাংলার মানুষের পাশে থাকা।’

স্বাভাবিক ভাবেই জল্পনা তৈরি হয় তাহলে কি রাজীব ফিরতে চাইছেন? এর মধ্যেই রাজীবকে হারানো কল্যাণ বলেন, তদন্তের ভয়ে ফিরতে চাইছেন রাজীব।

কী তদন্ত?

প্রসঙ্গত, রাজীব বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই তাঁর ছেড়ে আসা বনমন্ত্রক নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেছিলেন, বনসহায়ক নিয়োগে কারচুপি হয়েছে। পাল্টা চড়া সুরে রাজীবও জবাব দিয়েছিলেন। তা ছাড়া একসময় সেচ দফতরের দায়িত্বে ছিলেন রাজীব। ইয়াসে বাঁধ ভেঙে যাওয়া নিয়েও নানাবিধ অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এর মধ্যে রাজীবের এই নরম সুর নিয়ে যখন অনেকেই বলছেন, ভয় পেয়ে গিয়েছেন প্রাক্তন মন্ত্রী তখন তাঁর পাশেই দাঁড়াতে চাইলেন ববি।

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More