ফলওয়ালা থেকে সোজা ডাক্তার! অসহায় করোনা রোগীদের চিকিৎসা করতে গিয়ে শ্রীঘরে ঠাঁই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বেচতেন ফল, হয়ে গেলেন ডাক্তার! তাও আবার যে সে ডাক্তার নয়, একেবারে কোভিড রোগীর চিকিৎসা করে দেদার পয়সা লুঠছিলেন নাগপুরের চন্দন নরেশ চৌধুরী। কিন্তু ভাগ্যদেবতা খুব বেশিদিন সদয় থাকলেন না। অবশেষে শ্রীঘরেই যেতে হল নকল ডাক্তারবাবুকে।

ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের নাগপুর জেলার কামঠি এলাকায়। চন্দন নরেশ চৌধুরী নামের ওই ব্যক্তি একসময় রাস্তার ধারে ফল আর আইসক্রিম বিক্রি করতেন। পরে ইলেকট্রিশিয়ান হিসেবেও কাজ করেছিলেন বেশ কিছুদিন। কোভিডের সময়, যখন চারদিকে দিশাহারা মানুষ, যখন ডাক্তারদের উপরে অগাধ ভরসা করে দিন কাটাচ্ছেন কোভিড রোগীরা, তখন সেই বিশ্বাস ভরসার সুযোগ নিয়ে টাকা কামানোর অসৎ ফন্দি এঁটেছিলেন তিনি।

করোনা রোগীদের চিকিৎসা করছিলেন নাগপুরের এই ভুয়ো ডাক্তার। তাঁরই পূর্ব পরিচিত এক ব্যক্তি ঘটনাটি উপলব্ধি করে সোজা পুলিশের দ্বারস্থ হন। তারপর চৌধুরীর ডাক্তারখানায় হানা দেয় পুলিশ। নকল ডাক্তার সাজার জন্য তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত ৫ বছর ধরেই নাকি চন্দন ‘ওম নারায়ণ মাল্টিপারপাস সোসাইটি’ নামের একটি সংস্থা চালাচ্ছিলেন। সেখানে তিনি তাঁর কাছে আসা রোগীদের আয়ুর্বেদ চিকিৎসার ওষুধপত্র দিতেন। বলা বাহুল্য, ডাক্তারি পড়াশোনার সঙ্গে কখনও কোনও সম্পর্কই ছিল না তাঁর।

ভুয়ো ডাক্তারখানা থেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে বেশ কিছু অক্সিজেন সিলিন্ডার, ইনজেকশনের সিরিঞ্জ এবং ওষুধপত্র। ঘটনা সামনে আসতে এলাকায় ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য।

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More