এবার পুজোয় মাত করবে মধ্যপ্রদেশের হ্যান্ড উইভ ট্রাডিশনাল শাড়ি

এখন নিশ্চয়ই শপিং-এর তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে? কী ভাবছেন? এবার পুজোয় নতুন কিছু ট্রাই করতে চান? তবে অবশ্যই দক্ষিণ কলকাতার দক্ষিণাপণ শপিং কমপ্লেক্সের একতলায় মধ্যপ্রদেশ সরকার দ্বারা অনুমোদিত ‘মৃগনয়নী’তে একবার ঢুঁ মারতে পারেন। এঁদের একতলায় রয়েছে শাড়ির বিপুল সম্ভার। কী নেই এখানে? হাতে বোনা মধ্যপ্রদেশের চান্দেরি থেকে শুরু করে মাহেশ্বরি, কোষা শাড়ির রয়েছে অফুরন্ত ভাণ্ডার। এত ভ্যারাইটি যা চোখে না দেখলে বিশ্বাসই হয় না।জরির বুটি ও বর্ডার দেওয়া প্যাস্টেল শেডের কটন চান্দেরি শাড়ির দাম শুরু হয় ৪ হাজার টাকার থেকে। তবে শুধু জরি কেন? মিনাকারি, সুতোর কাজের অপূর্ব কারিকুরিতে বোনা বুটি ও বর্ডার দেওয়া এই ধরনের শাড়ি বেশ নজরকাড়া। প্যাস্টেল শেড ছাড়াও ব্রাইটার টোনও এই শাড়িতে রয়েছে। তবে সিল্কের ক্ষেত্রে এই ধরনের শাড়ির দাম ৭ হাজার টাকার থেকে শুরু হয়।শুধু পুজোয় কেন এই ধরনের সিল্কের শাড়ির চাহিদা বৌভাতের কনেদের মধ্যেও এখন প্রবল। কারণ এই শাড়ি এতটাই হালকা, যা সহজেই ক্যারি করা যায়। কাজের ওপর শাড়ির দাম নির্ভর করে। এছাড়াও রয়েছে মাহেশ্বরি শাড়ি যা কটনের পাশাপাশি সিল্কেও মিলবে। এই ধরনের শাড়ির ক্ষেত্রে সারা জমিতে কখনও বুটি আবার কখনও প্লেন জমিতে শুধু বর্ডার হয়। শাড়িতে জরি অথবা রেশমের বুটি থাকে।চান্দেরি শাড়ির ক্ষেত্রে বড় বুটি ও চওড়া বর্ডার হলেও তুলনায় মাহেশ্বরি শাড়ির বুটি ও বর্ডার হয় ছোট। এছাড়াও রয়েছে মধ্যপ্রদেশের তসর শাড়ি যা কোষা নামে জনপ্রিয়। সাধারণত জরি বা সুতোর কাজের হয়। তবে কোনও কোনও ক্ষেত্রে জরি ও সুতোর সংমিশ্রণ থাকে। ৪ হাজার টাকার থেকে দাম শুরু। এছাড়াও রয়েছে কটন, সিল্ক, তসরের বাগ প্রিন্টেড শাড়ি। বাগ নদীর জলে ভেজিটেবল ডাই করে এই শাড়ি ধোয়া হয়। ফলে কালারে আলাদা একটা এফেক্ট আসে। কটন বাগ শাড়ির দাম ৮৫০ টাকার থেকে শুরু হলেও সিল্কের শাড়ির দাম শুরু হয় ৬৬১৫ টাকার থেকে। এছাড়া ৬/৭ হাজার টাকার থেকে তসর বাগ শাড়ির দাম শুরু হয়। সাধারণত ফ্লোরাল প্রিন্টেড এই ধরনের শাড়ি হয়। সেইসঙ্গে শাড়ির সঙ্গে পরার জন্য রয়েছে ফ্যাশনেবল রেডিমেড ব্লাউজ।মহিলাদের জন্য আছে রেডিমেড কুর্তি, স্কার্ট-ব্লাউজ, পালাজো ইত্যাদি হালফ্যাশনের রকমারি পোশাক। রয়েছে কটন মঙ্গলগিরি থেকে শুরু করে তেলিয়া, ঘিচা তসর, চান্দেরি, মাহেশ্বরি ইত্যাদি রকমারি মেটিরিয়াল। যার দাম মিটার প্রতি ১১৫ টাকার থেকে শুরু। তবে মেটিরিয়ালের ওপর দাম নির্ভর করে। ৮০০ টাকার দামে পাওয়া যায় কটন দোপাট্টা।এখন পুজো উপলক্ষে এখানে হ্যান্ডলুমের পোশাকে দামের উপর ফ্ল্যাট ২০% ডিসকাউন্ট চলছে। আর যাঁদের প্রিভিলেজ কার্ড আছে সেক্ষেত্রে ২০%+১০% ছাড়ের সুযোগ রয়েছে। এছাড়াও এঁদের রুপোর ওপর অক্সিডাইজড করা জুয়েলারি রয়েছে যা হাল ফ্যাশনের আর যেকোনও আধুনিকার মনপসন্দ।চুড়ির দাম ৯০৫ টাকার থেকে দাম শুরু হলেও ৫০০ টাকার থেকে কানের দুলের দাম শুরু হয়। নেকপিসের দাম শুরু ৩০০০ টাকা থেকে। এই ধরনের স্টাইলিশ লুকের জুয়েলারির ক্ষেত্রে কোনও ছাড় নেই। তবে আর দেরি কেন? পারলে আজই আসুন।। জাস্ট নিজের চাহিদা ও পছন্দমতো কিনে নিলেই হল।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More