পাকিস্তানের ড্রাগ পাচার বানচাল করল সুরক্ষাবাহিনী, গুজরাত ও জম্মু-কাশ্মীরে একদিনে উদ্ধার ৪০ কেজি মাদক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রথমে গুজরাত। তারপর জম্মু-কাশ্মীর। একই দিনে মাদক উদ্ধার অভিযানে জোড়া সাফল্য পেল ভারতের সুরক্ষাবাহিনী। শুধু তাই নয়। দু’টি ঘটনাতেই পাকিস্তানের সরাসরি জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে বলে খবর৷

প্রথম অপারেশনের ঘটনাস্থল গুজরাতের জাখাউ উপকূল। সেখানে পাকিস্তান থেকে পাচার হওয়া মাদক উদ্ধার করে উপকূল রক্ষীবাহিনী। আজ সকালে ৩০ কেজি মাদক সমেত আটজন পাকিস্তানিকে গ্রেফতার করা হয়। এই অপারেশনে গুজরাতের সন্ত্রাসদমন শাখাও হাত লাগায়।

জানা গিয়েছে, পাকিস্তানের ওই জাহাজ আন্তর্জাতিক সমুদ্রসীমা বরাবর আসছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে যৌথ বাহিনী আগে থেকেই ফাঁদ পাতে। তারপর জাহাজটি জাখাউ উপকূলের কাছাকাছি আসতেই শুরু হয় তল্লাশি। তখনই দুষ্কৃতীরা হাতেনাতে ধরা পড়ে। উপকূল রক্ষীবাহিনীর তরফে বলা হয়েছে, উদ্ধার হওয়া মাদকের আর্থিক মূল্য কম করে ১ হাজার ১৫০ কোটি। প্রাথমিক অপারেশনের কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। যদিও যৌথ বাহিনী জাহাজটিকে তীরে এনে ফের একবার তল্লাশি চালাবে। কারণ, মাদক সহ আর কোনও নিষিদ্ধ জিনিস লুকিয়ে রয়েছে কিনা, সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া বাকি।

অন্যদিকে দ্বিতীয় ঘটনায় মাদক উদ্ধার অভিযানে সাফল্য পেল সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। জম্মু-কাশ্মীরের কারনা ফরেস্টে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর তল্লাশি চালানো হয়। হাতে আসে ১০ কেজি মাদক। যার আর্থিক মূল্য আনুমানিক ৫০ কোটি টাকা৷ চলতি সপ্তাহে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার উপত্যকায় মাদক বাজেয়াপ্ত করল সেনা। সূত্রের খবর, দুষ্কৃতীরা আজ সকালে নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরোতে না পেরে মাদকগুলি নষ্ট করার চেষ্টা চালাচ্ছিল। তখনই তাদের হাতেনাতে আটক করা হয়। ইদানীং ঘন ঘন মাদক পাচারের চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান। আর অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তাদের অভিসন্ধি বানচাল করছে ভারতীয় সেনা। এই অপারেশন জারি থাকলে পাকিস্তান-পরিচালিত ‘মাদক-সন্ত্রাস মডেল’ আগামী দিনে বড়সড় ধাক্কা খাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More