কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন: ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত ছেলের ছবি পোস্ট করে কী লিখলেন পরিচালক হনসল মেহতা?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিজের ২৫ বছর বয়সি ছেলে পল্লব ডাউন সিনড্রোমে ভুগছে।  তার প্রসঙ্গ  তুলে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদীর সরকারের কোভিড- ১৯ রোধী ভ্যাকসিন দেওয়ার নীতির সমালোচনা করলেন পরিচালক হনসল মেহতা।  ট্যুইটারে ছেলের ছবি পোস্ট করেছেন তিনি। ডাউন সিনড্রোমে ভোগা ছেলের কয়েক বছর আগে মারাত্মক শ্বাসকষ্টের সমস্যা থেকে এই আছে, এই নেই অবস্থা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন মেহতা।

কেন্দ্র বলেছে, করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হবে যাঁরা চান, তাঁদের নয়, যাঁদের প্রয়োজন, তাঁদেরই। অর্থাত আপনি চাইলেই ভ্যাকসিন পাবেন না, আপনার  সত্যিই তা দরকার কিনা, সেটা দেখতে হবে। এরই বিরোধিতা করলেন মেহতা। ট্যুইটে তিনি লেখেন, আমার ছেলে পল্লবের ২৫ বছর বয়স। ডাউন সিনড্রোম হয়েছে। কয়েক বছর আগে প্রবল শ্বাসকষ্টে ভুগে প্রায় মরতে বসেছিল। ও কি ভ্যাকসিন চায় না ওর পাওয়া প্রয়োজন?

ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন ও একাধিক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা ১৮র ওপর সকলকে ভ্যাকসিন দেওয়ার কেন্দ্র চালু করতে কেন্দ্রের কাছে আবেদন করেছেন। যদিও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ মঙ্গলবারের সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, যাঁরা নিতে চান, তাঁদের নয়, যাঁদের প্রয়োজন, তাঁদের ভ্যাকসিন দেওয়াই লক্ষ্য। আজকাল সকলের একটাই প্রশ্ন, কেন কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন সবাই পাচ্ছে না, সব পরিণত বয়সিদের কেন নয়। আমি বলতে চাই, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন কর্মসূচির  মূলত উদ্দেশ্য দুটো। মৃত্যু ঠেকানো ও হেলথ কেয়ার সিস্টেমকে রক্ষা করা। অতিমারীর মাঝে মূল উদ্দেশ্য শুধু যারা চায়, তাদের নয়, যাদের দরকার, তাদের ভ্যাকসিন দেওয়া। কেন্দ্র বলেছে, করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হবে যাঁরা চান, তাঁদের নয়, যাঁদের প্রয়োজন, তাঁদেরই। দেশের সবচেয়ে বিপন্ন যারা,তাদের রক্ষা করতে হবে। গোটা দুনিয়াতেও  এটাই চলছে।

সোস্যাল মিডিয়ায় অনেকেই একমত হন যে, বয়স কম হলেও হনসলের ছেলের সত্যিই ভ্যাকসিন দরকার। একজন লেখেন, ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্তরা ভ্যাকসিন পাওয়ার অধিকারী মেহতা লেখেন, সত্যিই? আমাকে প্রক্রিয়া, বিজ্ঞপ্তির ব্যাপারে সাহায্য করুন। ধন্যবাদ।

এদিকে পরে জানা গিয়েছে, ভারত ডাউন সিনড্রোমের শিকার লোকজনকে ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেবে। মার্কিন সেন্টার ফর ডিসিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) এই ধরনের জেনেটিক সমস্যায় পীড়িতদের তাদের হাই রিস্ক ব্যক্তিবর্গের তালিকায় রেখেছে। আইসিএমআরের শীর্ষ  চিকিত্সক ডঃ সমীরণ পান্ডা বলেন, আমরা ভ্যাকসিন স্ট্র্যাটেজির পরবর্তী বৈঠকে ডাউন সিনড্রোম রোগীদের কোমর্বিড (হাই-রিস্ক) তালিকায় রাখার প্রস্তাব দেব।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More