শীতে নিয়মিত স্নান সবচেয়ে বেশি জরুরি

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ঘোরা, খাওয়া, মজা করার জন্য অনেকেই শীতকালকে আদর্শ সময় ভাবেন। তবে এ সময় স্নান করতেই যেন গায়ে জ্বর আসে অধিকাংশ মানুষের। হবে নাই বা কেন! কনকনে ঠান্ডা জল দূরে থাক, শীতপোশাক খুলে ঠান্ডা স্নানঘরে যাওয়াটাই তো আতঙ্কের। তাই এ সময় অনেকেই রোজ স্নানের বালাই রাখেন না। সপ্তাহে এক-দু দিনেই সে পালা মেটান। তবে বিশেষজ্ঞরা শীতে রোজ স্নানের ব্যাপারে বিশেষ জোর দিচ্ছেন। কেন? চলুন জেনে নিই।

Hot water bath vs. cold water bath -- Which is healthier? |  TheHealthSite.com

● শীতে আবহাওয়া এমনিতেই রুক্ষ, শুষ্ক থাকে। মানবদেহেও সেই রুক্ষতা টের পাওয়া যায়। এর ওপর যদি এই ঠান্ডায় কেউ স্নান অনিয়মিত করেন বা জল কম খান, তখন শরীর আরও শুকিয়ে যায়। তা থেকে শুরু হয় নানা গোলযোগ।

● শীতে শুস্কতার কারণে নানারকম ত্বকের সংক্রমণ দেখা যায়। একজিমা, চুলকানির প্রবণতা বাড়তে পারে। তাই রোজ স্নান করে ত্বককে আর্দ্র রাখা জরুরি।

শীতে আরাম করে গরম জলে স্নান বাড়াচ্ছেন নিজের বিপদ ! | mysepik.com – Bengali  Online News Portal

● এ সময় আমরা শীতপোশাক ব্যবহার করি। কেউ কেউ আবার একটু বেশিই চাপিয়ে ফেলেন গায়ে। এতে শরীরের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা বেড়ে গিয়ে হিতে বিপরীত হতে পারে। তাই দেহের ভেতরের উষ্ণতার ভারসাম্য রক্ষার জন্য রোজ স্নান করাটা দরকার।

● শীত মানেই বাজার জুড়ে এক ঝাঁক রঙিন সবজি। এসবের লোভ সামলানো বড় কঠিন। তাই শীতে মানুষের খাওয়াদাওয়ার পাল্লাটা খানিক নিচের দিকে ঝুলেই থাকে। খাওয়ার বহর শরীরের যুৎসই না হলেই সে বেঁকে বসতে পারে। তাই এ সময় পেট গরমও বাড়ে অন্য সময়ের তুলনায়। রোজ স্নান করলে এ সমস্যা হওয়ার সুযোগ কম।

● শীতে রোজ স্নান অবশ্যই করুন। কিন্তু খেয়াল রাখুন স্নানের জল যেন খুব ঠান্ডা বা খুব গরম না হয়। এতে ত্বক, চুল, শরীরের ক্ষতি। চেষ্টা করুন স্নানের জলের তাপমাত্রা নাতিশীতোষ্ণ রাখতে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.