বন্যায় বিপর্যস্ত মধ্যপ্রদেশ, মৃত ৮, উদ্ধারকাজে নেমেছে বায়ুসেনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: লাগাতার বৃষ্টিতে ভয়াবহ অবস্থা মধ্যপ্রদেশের। অধিকাংশ জেলায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার থেকে টানা বৃষ্টি হচ্ছে মধ্যপ্রদেশে। অন্তত ১২টি জেলা প্লাবিত হয়েছে। এখনও পর্যন্ত বন্যায় মৃত্যু হয়েছে ৮ জনের। প্রায় ৯ হাজার লোককে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বিভিন্ন জলমগ্ন এলাকা থেকে। মধ্যপ্রদেশে সরকার, জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলাকারী সংস্থার পাশাপাশি বন্যা কবলিত এলাকা থেকে দুর্গতদের উদ্ধার করতে অভিযানে নেমেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। ১৭০টি ত্রাণ শিবিরে রাখা হয়েছে উদ্ধার করা মানুষদের।

নাগাড়ে বৃষ্টির ফলে মধ্যপ্রদেশের অধিকাংশ নদীতে জলের মাত্রা বেড়েছে। বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে মধ্যপ্রদেশের কয়েকটি মূল নদী। এর মধ্যেই আজ সকালে বালাঘাট জেলার মোওয়াদ গ্রাম থেকে তিনজনকে উদ্ধার করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। জানা গিয়েছে, তাঁদের মধ্যে রয়েছেন একজন বয়স্ক লোক। বন্যায় এই তিনজনেরই বাড়ি জলের তোড়ে ভেসে গিয়েছে। বয়স্ক ব্যক্তি ছাড়া বাকি দু’জনকে তাঁদের বাড়ির ছাদ থেকে উদ্ধার করেছেন বায়ুসেনা আধিকারিকরা। কোনও মতে সেখানে ঠাঁই নিয়ে প্রাণ বাঁচিয়ে উদ্ধারকারী দলের জন্য অপেক্ষা করছিলেন তাঁরা।

বালাঘাট জেলায় ওয়েনগঙ্গা নদীতে জলের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় এই বিপত্তি হয়েছে। ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে এই ব্যক্তিদের উদ্ধারকাজের ভিডিও টুইটারে শেয়ার করা হয়েছে। সেখানে দেখা গিয়েছে, বৃদ্ধ ব্যক্তিকে বুকে জাপটে ধরে নিয়ে চপারে উঠে আসছেন এক বায়ুসেনা অফিসার। ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, চপারে বসে খানিকটা জল খেয়ে ধাতস্থ হয়েছেন বৃদ্ধ।

এখনও উদ্ধারকাজ জারি রয়েছে মধ্যপ্রদেশের বিভিন্ন জেলায়। এখনও বিভিন্ন জেলায় অসংখ্য মানুষ আটকে রয়েছেন। তাঁদের উদ্ধারে নেমেছে বায়ুসেনা। আজ সকালে অন্তত ২০ থেকে ২৫ জনকে উদ্ধার করেছে বায়ুসেনা। তবে রবিবার পর্যন্ত বৃষ্টির জেরে নর্মদা নদীতেও ক্রমশ জল বাড়ছে। নতুন করে কিছু জেলা জলমগ্ন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে জোরকদমে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে উদ্ধারকারী দল। এখনও ৪০টি জলমগ্ন জেলায় আটকে রয়েছেন প্রায় ১২০০ মানুষ।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More