সরকারের টাকা নেই, ভাইরাস নিয়েই বাঁচতে হবে, লকডাউন তুলে বললেন ইমরান

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে পড়শি পাকিস্তানে। প্রতিদিন গড়ে ৮০ জনের মৃত্যু হচ্ছে। ২২ কোটির দেশে ইতিমধ্যেই কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ৭২,১৯০ জন। শেষ পাওয়া হিসেবে মৃত কমপক্ষে ১,৫৪৩।

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রোজ বাড়ছে আক্রান্ত, রোজ বাড়ছে মৃত্যু। তার মধ্যেই প্রায় পুরোপুরি লকডাউন উঠে গেল পাকিস্তানে। এমনকী দেশে পর্যটনেও অনুমতি দিয়ে দিল ইমরান খান প্রশাসন। এখন বন্ধ শুধু সিনেমা, থিয়েটার হল আর স্কুল-কলেজ।

সোমবার লকডাউন তোলার এই ঘোষণা করার সময়ে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দেশবাসীর উদ্দেশে বলেন, “ভাইরাসের সঙ্গেই বাঁচুন।” দেশের অর্থনীতিকে বাঁচাতে সব কিছু খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়ে তিনি বলেন, “এই ভাইরাস আরও ছড়াবে। আমাকে দুঃখের সঙ্গেই বলতে হচ্ছে যে, আরও অনেক মৃত্যু হবে। যদি মানুষ নিজেকে নিয়ে সতর্ক থাকে তবে তাঁরা ভাইরাসকে সঙ্গে নিয়েই বাঁচবেন।”

আরও পড়ুন

চিনা অ্যাপ বয়কটের জোয়ার, অল্প দিনেই জনপ্রিয় ‘রিমুভ চায়না অ্যাপস’, লক্ষ লক্ষ ডাউনলোড

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে পড়শি পাকিস্তানে। প্রতিদিন গড়ে ৮০ জনের মৃত্যু হচ্ছে। ২২ কোটির দেশে ইতিমধ্যেই কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ৭২,১৯০ জন। শেষ পাওয়া হিসেবে মৃত কমপক্ষে ১,৫৪৩।

লকডাউনের ফলে পাকিস্তান সরকারের আয় ইতিমধ্যেই ৩০ শতাংশ কমেছে। ইমরান খান জানিয়েছেন, দেশের ফিসক্যাল ডেফিসিট ৯.৪ শতাংশে নামতে পারে। অন্যান্য দেশের মতো আর্থিক ক্ষতি মেনে নেওয়ার ক্ষমতা নেই পাকিস্তানের। তিনি বলেন, ১৩ থেকে ১৫ কোটি মানুষের ক্ষতি হয়েছে লকডাউনে। দেশে ৫ কোটি মানুষ দারিদ্রসীমার নীচে বাস করে, আড়াই কোটি দিন আনা দিন খাওয়া শ্রমিক। পাশে দাঁড়াতে তাঁদের হাতে নগদ টাকা দিয়েছে সরকার। কিন্তু সেটা চালিয়ে যাওয়া আর সম্ভব নয়। ইমরান বলেন, “আমাদের যা অবস্থা তাতে এটা আর সম্ভব নয়। কতদিনই বা টাকা দেওয়া যায়।”

এর পরেই তিনি বলেন, দেশে সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে। সেই সঙ্গে মৃত্যুও বাড়তে পারে। দেশবাসীকেই সতর্ক হয়ে ভাইরাসের সঙ্গে বাঁচতে হবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More