ভারত নিয়ে মিথ্যা টুইট করে মুছতে বাধ্য হলেন ইমরান

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ভারতে পুলিশ মুসলিমদের ওপরে আক্রমণ করছে। এই বলে টুইট করেছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেই সঙ্গে একটি ভিডিও ফুটেজ পোস্ট করেছিলেন। তাতে দেখা যাচ্ছিল,নীল রং-এর উর্দি পরা কয়েকজন ব্যক্তি জনতাকে তাড়া করছে। রাস্তায় পড়ে থাকা একজনকে মারছে। সেই ছবি দেখিয়ে ইমরান বলেছিলেন, ভারতে এইভাবে পুলিশ মুসলিমদের হত্যা করছে। পরে জানা যায়, ভিডিওটি ২০১৩ সালে বাংলাদেশে তোলা হয়েছিল। অল্প সময়ের মধ্যে ইমরানের মিথ্যা ধরা পড়ে যায়। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী এমন ভুয়ো টুইট করেছেন জেনে রীতিমতো চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয় নেটিজেনদের মধ্যে। তারপরে ইমরান টুইটটি মুছে দেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় আচমকা খবর আসে, পাকিস্তানে নানকানা সাহিব গুরুদোয়ারায় আটকে পড়েছেন কয়েকজন পুণ্যার্থী। বাইরে জড়ো হয়েছে কয়েকশ উত্তেজিত জনতা। তারা তীর্থযাত্রীদের উদ্দেশে পাথর ছুড়ছে। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ভারত। তীর্থযাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে আবেদন জানান পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। তার পরেই ইমরান ওই ভিডিও ফুটেজ টুইট করেন।

নানকানা সাহিবে শিখ ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা গুরু নানক জন্মগ্রহণ করেছিলেন। একটি সূত্রে জানা যায়, গত অগস্টে স্থানীয় এক যুবক গুরুদোয়ারার জনৈক কর্মীর মেয়েকে অপহরণ করেছিল। তাকে ধর্মান্তর করে সে বিবাহ করে। এদিন সেই যুবকের পরিবারই নানকানা সাহিবে এসে অশান্তি করেছিল।

ভারত সরকার থেকে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, “যেভাবে পবিত্র তীর্থে ভাঙচুর করা হয়েছে আমরা তার তীব্র নিন্দা করছি। পুণ্যার্থীদের নিরাপত্তার জন্য পাকিস্তান সরকার অবিলম্বে ব্যবস্থা নিক।” অকালি দলের বিধায়ক মনজিন্দর সিং সিরসা বলেন, আমি অবিলম্বে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, পাকিস্তানে শিখদের নিরাপত্তার জন্য ব্যবস্থা নিন।

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং-ও বলেন, আমি ইমরান খানের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, তিনি যেন গুরুদোয়ারা নানকানা সাহিবে আটকে পড়া পুণ্যার্থীদের নিরাপত্তার জন্য ব্যবস্থা নেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More