‘করোনা পিঠে’ বানিয়ে তাক লাগালেন জলপাইগুড়ির গৃহবধূ, ভেষজ উপাদানে অনন্য স্বাদ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পিঠেতেও এবার করোনা সুরক্ষার কবচ! কোভিড সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনেই নাকি তৈরি হয়েছে এই বিশেষ কোভিড পিঠে। জলপাইগুড়ির এই কাণ্ডে জোর হইচই পড়ে গেছে বাসিন্দাদের মধ্যে। কিন্তু প্রশ্ন হল, কী রয়েছে এই বিশেষ পিঠেতে? বানিয়েছেনই বা কে?

জানা গেছে, রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে, এমন উপাদান হিসেবে পরিচিত তুলসি, লবঙ্গ-সহ আরও নানা ভেষজ দ্রব্য দিয়ে পিঠে বানিয়ে জামাইকে আপ্যায়ণ করেছেন শাশুড়ি-মা। অভিনব সেই পিঠে খেয়ে আপ্লুত হয়েছেন জামাইও।

এবারে করোনা আবহেই এসেছে পৌষ পার্বন। কিন্তু পৌষ সংক্রান্তি উৎসবে মেতে কোভিড আক্রান্ত হয়ে পড়া কোনও কাজের কথা নয়, সচেতনতা জরুরি। তাই বাড়ির সকলকে এবার বিশেষ বার্তা দিতে, পিঠেতেও কোভিড সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধির ছাপ রাখতে দেখা গেলো জলপাইগুড়ি পোড়া পাড়া এলাকার ওই শাশুড়ি-মাকে।

গৃহবধূ শেফালী রায় জানিয়েছেন, এই পিঠে আসলে অনেকটা মালপোয়ার মত। ঢেকিছাঁটা চালের গুঁড়োর সঙ্গে সুজি, চিনি ইত্যাদি তো আছেই। সেই সঙ্গে কোভিড সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে এতে মেশানো হয়েছে তুলসীপাতা, লবঙ্গ, দারচিনি, গোলমরিচ ও আরও কিছু ভেষজ জিনিস, যা খেলে সর্দিকাশি ইত্যাদি কম হবে, ঠান্ডা লাগার ঝুঁকি কমবে।

শেফালী দেবী জানালেন, “ভ্যাকসিন এসেছে ঠিকই। কিন্তু করোনা এখনও বিদায় নেয়নি। তার উপরে ছেলের বিয়ে দিচ্ছি।তাই বাড়িতেও আত্মীয়রা এসেছে। সেই কারণে আমি বুদ্ধি খাটিয়ে বাড়িতে তৈরি ঢেকিছাঁটা চালের গুঁড়োর সঙ্গে তুলসিপাতা, লবঙ্গ, গোলমরিচ, দারচিনি ইত্যাদি মিশিয়ে পিঠে বানালাম। যাতে সর্দিকাশি ইত্যাদি না হয়। খেয়ে সবাই খুব খুশি।”

শেফালী দাবীর জামাই নিখিল খাঁ অভিনব এই পিঠে খেয়ে জানালেন, নানা রকম ভেষজ জিনিস মেশানোর ফলে পিঠের স্বাদ আরও সুন্দর হয়েছে। পিঠে থেকে দারুণ সুগন্ধ বেরোচ্ছে। এইসব ভেষজ জিনিস খেলে সুস্থও থাকা যায়। সবাই যদি এভাবে পিঠে বানায় তবে ভালই হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।”

এদিন জলপাইগুড়ির শহর সংলগ্ন গ্রামীণ এলাকায় লুপ্ত হওয়া ছাম গাইন বা ঢেঁকি দিয়ে দিয়ে চাল গুঁড়ো করে পিঠে পুলি তৈরি করার উদ্যোগ নিতে দেখা যায় অনেককে। একইসঙ্গে গরুর গায়ে চালের গুঁড়ো দিয়ে আল্পনা একে গরুকে সাজানোর পাশাপাশি পুজো দিতেও দেখা যায় গৃহবধূদের।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More