“আমাদের দলে সবাই ম্যাচ উইনার”, দীনেশ কার্তিক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: লিগের পালা সাঙ্গ। এবার নজর ফাইনালের দিকে। তার আগে বুধবারের প্রথম এলিমিনেটর এখন পাখির চোখ নাইট ম্যানেজমেন্টের। প্রাক্টিসেও দেখা গেল সেই ছবি।

আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী তিন-চার নম্বর দলকে ফাইনালে উঠতে গেলে খেলতে হয় দুটো ম্যাচ। প্রথম এলিমিনেটরে হেরে গেলেই বিদায়। কোয়ালিফায়ার ২ খেলার সুযোগই মিলবে না। দু’বার আইপিএল জেতা অভিজ্ঞ কেকেআর ম্যানেজমেন্ট সেটা জানেন। আর তাই বিপক্ষের শক্তি-দুর্বলতা নিয়ে শুরু হয়েছে পোস্টমর্টেম।

চলতি আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসকে হোম-অ্যাওয়ে দু’পর্বেই হারিয়েছিলেন দীনেশ বাহিনী। তাই আত্মবিশ্বাসী তাঁরা। কিন্তু এর জন্য যেন কখনোই টিমের ফোকাস নষ্ট না হয়, সে ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি কোচ জাক কালিসের। কালিস বারবার বলেছেন, কলকাতা দল হলো তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার মিশেল। টিম হিসেবে খেলেই এই সাফল্য তাঁদের।

ইডেনে প্র্যাকটিসে কেকেআর খেলোয়াড়রা

গ্রুপ লিগের খেলায় অধিনায়ক দীনেশ কার্তিককে বারবার বলতে শোনা গিয়েছে যে তাঁর দলে সবাই ম্যাচ উইনার। শুধুমাত্র একজন বা দুজনের উপর নির্ভর করেন না তাঁরা। তাই হইতো অরেঞ্জ ক্যাপ বা পার্পেল ক্যাপের তালিকায় তাঁদের কোনও খেলোয়াড় নেই। কিন্তু এই টিমে যেটা আছে, সেটা হলো দলগত প্রচেষ্টা। দল হিসাবে খেলেই তাঁরা সফল হয়েছেন। তাই প্লেঅফেও তার কোনও বদল হবে না।

রাজস্থান দলের প্রধান শক্তি বাটলার-গোপাল যুগলবন্দী। ব্যাট হাতে বাটলার যেরকম রান পাচ্ছেন, বল হাতে তেমনই বিপক্ষের ত্রাস হয়ে উঠছেন তামিলনাড়ুর শ্রেয়স গোপাল। গোপাল, সি এম গৌতম ও ইশ সোধির স্পিন ত্রয়ী নিয়েই ভাবনা নাইট ম্যানেজমেন্টের। তাই হয়তো বুধবারের খেলায় ইডেনের উইকেটে স্পিন খুব একটা দেখা যাবে না। আপাতত সেই নির্দেশই দেওয়া হয়েছে দলের তরফে।

কলকাতার সাফল্যের মূলেও কিন্তু তিন স্পিনার। কুলদীপ, পীযূষ চাওলা ও সুনীল নারিন। এছাড়াও গ্রুপের শেষ ম্যাচে দুরন্ত বোলিং করেছেন তরুণ প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা। কৃষ্ণা, সির্লস এবং রাসেলের উপরেই নির্ভর করবে কলকাতার পেস বোলিং। সুনীল নারিন বলের সঙ্গে ব্যাট হাতেও কেরামতি দেখাচ্ছেন। তাই শুরুতেই নারিন-লিন জুটির বিদ্ধংসী হওয়ার আশায় নাইট ম্যানেজমেন্ট।

মিডল অর্ডারের দায়িত্ব মূলত নির্ভর করছে উত্থাপ্পা, নীতীশ রাণা, অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক, আন্দ্রে রাসেল ও তরুণ শুভমান গিলের উপর। কার্তিক চলতি মরশুমে যেভাবে খেলছেন, তাতে তাঁর উপর ভরসা রয়েছে কেকেআর সমর্থকদেরও। গ্রুপ লিগ শেষে ডিকে বলেছিলেন যে তাঁদের কাছে এখন থেকে প্রতিটা ম্যাচই ফাইনাল। আপাতত প্রথম ফাইনালে রাজস্থানকে হারানোর লক্ষ্যে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

সম্ভাব্য একাদশ: সুনীল নারিন, ক্রিস লিন (ওপেনার), রবিন উত্থাপ্পা, নীতীশ রাণা, দীনেশ কার্তিক (অধিনায়ক), আন্দ্রে রাসেল, শুভমান গিল, যেভন সির্লস, পীযূষ চাওলা, কুলদীপ যাদব, প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা।

 

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More