মীনাক্ষী-দীপ্সিতারা আগলে নিলেন, তেড়েও গেলেন, নবান্ন অভিযানের সেরার শিরোপা মেয়েদের মুকুটেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিদির সরকারকে ‘রিলিজ অর্ডার’ ধরাতে নবান্ন অভিযান ডেকেছিল বাম ছাত্র-যুব সংগঠনগুলি। তাতে দিনভর দফায় দফায় সংঘাত চলেছে বাম কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের। লাঠির বাড়ি, কাঁদানে গ্যাস, রক্ত, গ্রেফতার, তাণ্ডব– বিষ্যুদবারের কলকাতা সব দেখল। অনেকে বলছেন শুধু দেখল নয়, কলকাতা অনেকদিন পর বাম কর্মসূচির ঝাঁঝও দেখল। আর ছাত্র-যুবদের সেই কর্মসূচি ছাত্রী বা তরুণীদের ভূমিকার তারিফ করছেন মিছিল-ফেরত অনেকেই।

সিপিএমের যুব সংগঠন ডিওয়াইএফআই-এর রাজ্য সভানেত্রী এবং এসএফআইয়ের সর্বভারতীয় যুগ্ম সম্পাদিকা দীপ্সিতা ধর, সারাদিন যে ভাবে রাজপথে খেললেন, তা দেখে পোড় খাওয়া অনেকেই বলছেন, ভোটে জেতা-হারা পরের কথা। আন্দোলনের গর্ভে ভবিষ্যতের নেতৃত্বের জন্ম হয়ে গেল।

মীনাক্ষী পশ্চিম বর্ধমানের শিল্পাঞ্চলের তরুণী। তাঁর নামে এখন বামেদের সভায় ভিড় হয় মফস্বলে। হিন্দি-বাংলার মিশেলে তুফান তোলেন তিনি। আর দীপ্সিতা, বেলুড়ের মেয়ে। আশুতোষ কলেজ থেকে শুরু করে জেএনইউ। অনেকে বলছেন, এই দু’জন আজ খেললেন বটে।

কী করলেন ওঁরা?

হুগলির এক যুব নেতার কথায়, যখনই যুবক বা ছাত্রদের পুলিশ পেটাচ্ছে তখন তাদের আগলে নিলেন মীনাক্ষী, দীপ্সিতারা। ফলে থামতে হয় প্রশাসনকে। কারণ ওই টিয়ার গ্যাসের ধোঁয়া আর পুলিশের বেপরোয়া লাঠির মধ্যে মহিলা পুলিশ নেই। সেই সুযোগে ডিফেন্সের সঙ্গে প্রতি আক্রমণ।

জল কামানে ভিজে যাওয়া বিধ্বস্ত চেহারা, এলোপাথাড়ি চোট-আঘাত নিয়ে এই দু’জন নজর কাড়লেন অনেকের। সিপিএম রাজ্য সম্পাদক একটি ছবি টুইট করেছেন। তাতে দেখা যাচ্ছে এক তরুণকে লাঠি হাতে পুলিশ আক্রমণাত্মক আর ধ্বস্ত, ভিজে যাওয়া দীপ্সিতা তাঁকে আগলাচ্ছেন। তাতে সূর্যবাবু লিখেছেন, “কমরেড মানে পাশাপাশি থাকা, কমরেড মানে সাথী/ কমরেড মানে নতুন পৃথিবী নতুন একটা জাতি।”

২০১৭ সালে বামেদের একটি নবান্ন অভিযানে দেখা গিয়েছিল, হুগলি, হাওড়ার নেতারা গঙ্গার ধারে দাঁড়িয়ে কিং সাইজ সিগারেট খাচ্ছেন আর কর্মীরা পুলিশের মার খাচ্ছেন। অনেককে আন্দোলন থেকে পালিয়ে যেতেও দেখা গিয়েছিল। কিন্তু নেতাদের যে পালাতে নেই, কর্মীদের সঙ্গে কাঁধে-কাঁধ মিলিয়ে থাকতে হয়, এদিন বোধহয় বাংলা তা দেখতে পেল। সিপিএমের অনেককে সবক শেখালেন মেয়েরা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More