খোলা যাবে না হোটেল, বাজার, কেজরিওয়ালের সিদ্ধান্ত খারিজ লেফটেন্যান্ট গভর্নরের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কিছুদিন আগে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ঘোষণা করেন তৃতীয় দফায় কোভিড ১৯ লকডাউন শিথিল করা হবে। আগামী শনিবার থেকে খোলা হবে হোটেল। বাজারগুলিও এক সপ্তাহ খোলা রেখে দেখা হবে, এর ফলে বেশি করে করোনা ছড়ায় কিনা। দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বাইজাল এই দু’টি সিদ্ধান্তই নাকচ করে দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিনিধি ও বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের প্রধান হিসাবে বাইজাল ঘোষণা করেছেন, আপাতত হোটেল বা বাজার খোলা যাবে না।

শুক্রবার দিল্লিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১১৯৫ জন। এই নিয়ে রাজধানীতে মোট ১ লক্ষ ৩৫ হাজার ৫৯৮ জন আক্রান্ত হলেন। মারা গিয়েছেন ৩৯৬৩ জন। সারা দেশে যে শহরগুলিতে সবচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণ হয়েছে, তাদের মধ্যে দিল্লি আছে তিন নম্বরে। এর মধ্যেই লকডাউনে বিধ্বস্ত অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার চেষ্টা চালাচ্ছেন কেজরিওয়াল।

করোনা অতিমহামারী শুরু হওয়ার পরে দিল্লি সরকারের বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নাকচ করে দিয়েছেন লেফটেন্যান্ট গভর্নর। গত মাসে দিল্লি সরকার সিদ্ধান্ত নেয়, কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালিত হাসপাতালগুলি ছাড়া অন্যান্য হাসপাতালে কেবল দিল্লির বাসিন্দারাই ভর্তি হতে পারবেন। কিন্তু অনিল বাইজাল এই সিদ্ধান্ত নাকচ করে দেন। কেজরিওয়াল লেফটেন্যান্ট গভর্নরের সেই সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে বলেন, “এখন রাজনীতি করার সময় নয়। মতপার্থক্যেরও সময় নয়।”

ভারতে গত সপ্তাহের তুলনায় এই সপ্তাহে ২০ শতাংশ বেড়েছে সংক্রমণের হার। গত কয়েকদিন ধরেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। অনেক মানুষ সুস্থ হলেও সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। মোট আক্রান্তের বিচারে এখন বিশ্বে এক নম্বরে আমেরিকা। এর পরেই রয়েছে ব্রাজিল। কিন্তু ভারতে দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধির হার ওই দুই দেশের থেকে বেশি। এদিন ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রক যে হিসেব দিয়েছে তাতে আগের ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজারের বেশি। এতেই দেখা যাচ্ছে, নতুন আক্রান্তের সংখ্যা বিশ্বে সবচেয়ে দ্রুত গতিতে এগোচ্ছে ভারতে।

ব্লুমবার্গের রিপোর্টে বলা হয়েছে, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং কর্নাটক-সহ কিছু রাজ্যে প্রতিদিন কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনসংখ্যার দেশ ভারতে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ানো হলেও তা অন্য দেশের তুলনায় কম বলেও দাবি করা হয়েছে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More