দু’মলাটের সীমানার মধ্যে অসীমকে ধরার এক চমৎকার প্রয়াস

সুলগ্না বসু

কথায় বলে ‘বিন্দুতে সিন্ধু দর্শন ‘। শান্তনু বসু’র লেখা ‘রবীন্দ্রনাথ -জীবন ও কর্মকাণ্ড’ এমনই একটি বই যা প্রকৃতই বিন্দু আধারে রবীন্দ্রনাথের  সমুদ্রসম বিপুল জীবন ও কর্মের চলচ্ছবিটি উন্মোচন করে। যে মানুষটি তাঁর সমকালকে অতিক্রম করে আজ ও মানুষের জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে, প্রতিটি পথের বাঁকে বিছিয়ে রাখেন তাঁর অলঙ্ঘ্য উপস্থিতি, তাঁর জীবনী রচনা বড় সহজ কাজ নয় । বিশেষত রবীন্দ্রনাথের জীবনী ইতিপূর্বে একাধিক রচিত হয়েছে যা লেখকদের দীর্ঘ গবেষণার ফসল রূপে বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে চিরকালীন হয়ে রয়ে গেছে। স্বয়ং রবীন্দ্রনাথ ও জীবনস্মৃতি বা ছেলেবেলায় এঁকে গেছেন তাঁর জীবনের জলছবি। তবু আরেকটি নতুন কাজের কী সার্থকতা?

বইটি পড়তে পড়তে তাই অনুধাবনের চেষ্টা করছিলাম। ভূমিকায় লেখকের বক্তব্য থেকে জানা গেল প্রথমে তিনি রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে একটি তথ্যচিত্র তৈরি করেছিলেন এবং কাজটি করতে গিয়ে তাঁর মনে হয়, এই বিশ্বখ্যাত মানুষটির জীবন ও কর্মের কথা জানার ইচ্ছা কোনও  সাধারণ মানুষের হলে তাকেও বহু খণ্ডে রচিত বিপুলাকৃতি জীবনীগ্রন্থের উপরই নির্ভর করতে হবে। আজকের দিনে ততটা সময়ই বা কজন দিতে পারেন? তাই আরও ক্ষুদ্র পরিসরে সহজ করে যদি বলতে পারা যেত কোথাও, তাহলে হয়তো কিছুটা সুবিধা হত । এমন ভাবনাচিন্তা থেকেই এই বইটির সূত্রপাত।

বইটিতে চারটি মূল পরিচ্ছেদ — ভূমিকা, দ্বারকানাথ ঠাকুর, দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। এই চারটি পরিচ্ছেদের অন্তর্গত রয়েছে আরও অনেকগুলি অধ্যায়। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শীর্ষক পরিচ্ছেদে অধ্যায় সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। সূচনা পর্বে আলোচিত অধ্যায়গুলি থেকে বোঝা যায় লেখক ঠাকুর পরিবারের শিকড়ের সন্ধান দিয়ে তবেই রবীন্দ্রনাথের জীবন ও কর্ম সম্পর্কিত আলোচনা শুরু করেছেন। যেমন –কলকাতা’র ইতিহাস ও ঠাকুর পরিবারের পরিচিতি, যেখানে কলকাতার পত্তন থেকে শুরু করে পিরালি ব্রাহ্মণদের ইতিহাস সম্পর্কে অনেক তথ্য আছে যা কৌতূহল জাগায়। দ্বারকানাথ ঠাকুর ও তাঁর সমকাল সম্পর্কে তথ্যসমৃদ্ধ পরিচিতিদানের পর লেখক দ্বারকানাথ পরবর্তী জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়ি’র কিছু কথা জানিয়েছেন যা দ্বারকানাথ থেকে দেবেন্দ্রনাথের কালপর্বে পৌঁছতে একটি সেতুর মত কাজ করে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শীর্ষ নামের অন্তর্গত প্রথম অধ্যায়ে  দেওয়া হয়েছে রবীন্দ্রনাথের জন্মকুণ্ডলী। একমাত্র  জ্যোতিষ চর্চায় আগ্রহী ব্যক্তি ছাড়া সাধারণ পাঠকের ক্ষেত্রে পৃষ্ঠাটি যোগ করার তেমন যৌক্তিকতা বোঝা গেল না ।এরপর জন্মলগ্ন,নামকরণ ইত্যাদি ঘটনা উল্লেখের মাধ্যমে এক মহাজীবনের সূচনার ইতিহাস ক্রমশ উন্মোচিত হতে থাকে।

সোনার খাঁচায় শৈশবের দিনগুলি, ছেলেবেলার সংগীত চর্চা, স্কুলে যাওয়া ও ঘরের মধ্যে , sulagna basu

উচ্চ শিক্ষা, প্রথম কবিতা লেখা -এই অধ্যায়গুলিতে কবির শৈশব জীবনচিত্র খুব সুন্দর ভাবে ফুটে উঠেছে। হিমালয় ভ্রমণ, প্রথম বিলেত সফরের প্রস্তুতি, বিলেতে কাটানো দিনগুলির কথা পড়তে পড়তে মনে হয় এমন করেই তো রবির আলো ছড়িয়ে পড়েছে দিক্-দিগন্তে। এরই সঙ্গে কবির কবিতা-নাটক -প্রবন্ধ -উপন্যাসের সৃজন -কথা, ভারতবর্ষের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট, রবীন্দ্রনাথের প্রতিবাদ, রবীন্দ্রনাথের আন্তর্জাতিকতা, রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টি তথা ব্যক্তিজীবন সম্পর্কিত সমালোচনা, শিক্ষা ও স্বদেশ সম্পর্কে কবির ভাবনা চিন্তা – সবকিছুই স্বল্পাকারে কিন্তু তথ্যের ভিত্তিতে উপস্থাপিত হয়েছে ।

সম্পূর্ণ গ্রন্থটি পড়লে বোঝা যায়, তথ্যনিষ্ঠ ভাবে সহজ ভাষায় লেখা এই বইতে রবীন্দ্র বংশধারা,জীবনের বিবিধ পর্ব ও কর্মকাণ্ড এবং সাহিত্য সৃষ্টির সঙ্গে তার যোগসাধন– এসবই স্বল্প পরিসরে সংহত আকারে তুলে ধরা হয়েছে। বিপুল এক জীবনকে ক্ষুদ্র আধারে প্রতিফলিত করা সহজ কাজ নয়। লেখক যথেষ্ট শ্রম ও নিষ্ঠা সহকারে সেই কাজটি সুসম্পন্ন করেছেন। অল্প সময়ের মধ্যে রবীন্দ্র জীবনের তথ্যাবলি সম্পর্কে সম্যক ধারণা যাঁরা পেতে চান, তাঁদের কাছে এই বইটি অবশ্যই সংগ্রহযোগ্য ।

রবীন্দ্রনাথ: জীবন ও কর্মকাণ্ড

শান্তনু বসু

অভিযান পাবলিশার্স

২৫০ টাকা

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More