‘মুকুল কিন্তু ভোটের সময়ে আমাদের বিরুদ্ধে একটা কথাও বলেনি’, রায় পিতা-পুত্রকে পাশে নিয়ে মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ৩ বছর ৮ মাসের বিচ্ছেদ। তিক্ততা দূরে সরিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে এলেন মুকুল রায় ও তাঁর ছেলে শুভ্রাংশু রায়। তাঁদের তৃণমূলের মঞ্চে স্বাগত জানালেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, ‘ওল্ড ইজ গোল্ড’। অর্থাৎ পুরনোরাই খাঁটি।

কিন্তু এ প্রশ্নে সন্তুষ্ট ছিল না সংবাদমাধ্যম। সাংবাদিকরা মুকুল রায়কে প্রশ্ন করছিলেন, তিনি বিজেপি ছেড়ে দেওয়ার কারণ কী? আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাঁরা প্রশ্ন করেন, এই মুকুল রায় আপনার ও অভিষেকের বিরুদ্ধে ব্যক্তি আক্রমণ করেছিলেন। আপনাদের মতান্তর তৈরি হয়েছিল। তা হলে হঠাৎ করে রসায়ন বদলে যাওয়ার কারণ কী?
মুকুলবাবু জবাবে বলেন, আমি তো বলেছি বিজেপি করতে আমার ভাল লাগছিল না। আর সবিস্তার কারণ আমি লিখিত ভাবে বিবৃতি আকারে পেশ করব।

অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এসব বিজেপি মিডিয়ার প্রশ্নের জবাব আমি দেব না। মুকুলের সঙ্গে আমার মতবিরোধ কখনও ছিল না। বিজেপি পার্টি করা যায় না। ওরা শোষণ করে, নিপীড়ন করে। মুকুল তৃণমূলে ফিরে এসে মানসিক ভাবে শান্তি পেল। দিদি এও বলেন, ‘মুকুল কিন্তু ভোটের সময় আমাদের বিরুদ্ধে একটা কথাও বলেননি।’

স্বাভাবিক ভাবেই এর পর প্রশ্ন ওঠে যে, মুকুল রায়কে দলে কী পদ দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? জবাবে দিদি বলেন, সেটা আমরা এখনও স্থির করেনি। আগের যেমন ছিল সে রকমই। তাঁর কথায়, মুকুলের সঙ্গে অনেকেই তৃণমূল ছেড়েছিল। তাঁদের অনেকে আবার ফিরে আসতে চাইছেন। এ ব্যাপারে আমরা আলোচনা করেছি। এঁদের মধ্যে চরমপন্থী ও নরমপন্থী দুরকম রয়েছে। যাঁরা দল ছেড়ে গদ্দারি করেছে, দলের বিরুদ্ধে বাজে কথা বলে গেছে, তাঁদের নেওয়া হবে না। যাঁরা তা করেনি তাঁদের ব্যাপারে দল বিবেচনা করবে।

সাংবাদিক বৈঠকে এদিন মুকুলবাবু বলেন, আমি আমার পুরনো জায়গায় ফিরে এসেছি। পুরনো লোকেদের দেখছি। এই আমার বেশ ভাল লাগছে।

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More