ফের পেনাল্টি গোল মেসির, বিশ্রী হারে সঙ্কটে ম্যাঞ্চেস্টার, পিএসজি

 

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রীতিমতো জমে উঠেছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ এইচ-র লড়াই। প্রথম তিনটি ম্যাচের পরেও পরিষ্কার নয় চিত্রটা। তালিকার সব শেষে থাকা দল ইস্তানবুল হারিয়েছে শীর্ষে থাকা ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডকে। লাইপজিগের বিপক্ষে জিততে পারেনি প্যারিস স্যঁ জ্যঁ (পিএসজি)।
গত রাতে দুইটি ম্যাচ শেষ হয়েছে একই ব্যবধানে। যেখানে জয় পেয়েছে ঘরের মাঠের দুই দলই। ম্যান ইউকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ইস্তানবুল বাসেকহির। একই ব্যবধানে পিএসজি-কে হারিয়ে গত আসরের সেমিফাইনাল ম্যাচের প্রতিশোধ নিয়েছে আরবি লাইপজিগ।
ম্যাচের প্রথম গোলটি যদিও করেছিল পিএসজি। মাত্র ৬ মিনিটের মাথায় এগিয়ে দেন পিএসজি-র আর্জেন্টাইন তারকা অ্যাঞ্জেল দি’মারিয়া। এই গোল শোধ করতে ৪১ মিনিট অপেক্ষা করতে হয়েছে লাইপজিগকে। ক্রিস্টোফার কুনকুর গোলে সমতা ফিরে আসে। পরে দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে ম্যাচের ৫৭ মিনিটের সময় পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন এমিল ফর্সবার্গ।
গ্রুপের অন্য ম্যাচে, তিনটি গোলই হয়েছে প্রথমার্ধে। প্রতিপক্ষের মাঠে খেলতে গেলেও আধিপত্য বিস্তার করেছিল ম্যান ইউ। কিন্তু গোল পায়নি। দুই গোল করে এগিয়ে যায় ইস্তানবুল। পরে ব্যবধান কমালেও সমতা ফেরাতে পারেনি নামী দলটি।
অন্য আরও একটি ম্যাচে বার্সেলোনা ২-১ হারায় ডায়নামো কিয়েভকে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এই ম্যাচে বিপক্ষ দলের দুই নিয়মিত গোলরক্ষক খেলতে পারেননি করোনা আক্রান্ত হওয়ার কারণে। ১৮ বছরের তরুণ রুশলান নেশেরেভ গোলকিপিং করে সকলের প্রশংসা আদায় করে নিয়েছেন। তিনি হয়তো দলের হার আটকাতে পারেননি, কিন্তু বার্সার নিশ্চিত চারটি গোল রুখে দিয়ে নায়ক তিনি।
সারা ম্যাচে বার্সেলোনার ২২টি শটের মধ্যে ১৪টি ছিল একেবারে নিখুঁত। এর মধ্যে লিওনেল মেসি ও জেরার্ড পিকের একটি করে শটই শুধুমাত্র প্রতিহত করতে ব্যর্থ ওই তরুণ গোলরক্ষক। ঘরের মাঠে হওয়া ম্যাচটিতে পুরোপুরি দাপট দেখিয়ে খেলেছে বার্সেলোনা।
প্রথম গোলও পেয়েছে ম্যাচের পাঁচ মিনিটের মধ্যে। ডি-বক্সের মধ্যে লিওনেল মেসিকে ফাউল করেছিলেন ডায়নামো ডিফেন্ডার ডেনিস পপোভ। যে কারণে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। গোলের সহজ সুযোগ পেয়ে সেটি হাতছাড়া করেননি মেসি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ইতিহাসে বার্সেলোনার পক্ষে দ্রুততম পেনাল্টি গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। চলতি মরসুমে এখনও পর্যন্ত তিনটি গোল করেছেন মেসি। তিনটিই পেনাল্টি থেকে।
এই জয়ের ফলে টুর্নামেন্টের শেষ ষোলোয় যাওয়া অনেকটাই নিশ্চিত মেসিদের। ‘জি’ গ্রুপে তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে তারা। একই গ্রুপে তিন ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে রোনাল্ডোর জুভেন্টাস।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More