‘মিনি লকডাউন’ জারি হোক মহারাষ্ট্রে, নাইট কার্ফু যথেষ্ট নয়, প্রধানমন্ত্রীকে লিখলেন উদ্ধব

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিন দিন খারাপ হচ্ছে দেশের করোনা পরিস্থিতি। বাড়ছে সংক্রমণ, মৃত্যুর হার। সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যাও প্রশাসনের সর্বস্তরে চিন্তার ভাঁজ বাড়িয়েছে। এর মধ্যে মহারাষ্ট্রের কোভিড-দুর্যোগ নিয়ে ফের একবার আশঙ্কা প্রকাশ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব থ্যাকারে। নাইট কার্ফু যথেষ্ট নয়। তাই সারা রাজ্যে ‘মিনি লকডাউন’ জারির পক্ষে সাওয়াল করলেন তিনি। এই নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠিও লিখেছেন উদ্ধব।

তাঁর দাবি, অবিলম্বে করোনাকে স্বাভাবিক দুর্যোগ হিসেবে ঘোষণা করা হোক। যাতে সাধারণ জনগণেকে অন্ত্যোদয় অন্ন যোজনার সাহায্য করা যায়। এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত সমস্ত বয়স্ক ব্যক্তি দৈনিক ১০০ টাকা এবং শিশুরা ৬০ টাকা করে পেয়ে থাকে।

এর পাশাপাশি থ্যাকারে জানান, গত বছর করোনা ও লকডাউনের জোড়া ধাক্কায় বহু ক্ষুদ্র ও মাঝারি সংস্থা ব্যাবসায় মার খেয়েছে। অনেক সংস্থা দেনার দায়ে ডুবে রয়েছে। অর্থনীতির চাকা পুরোপুরি সচল হয়নি। এখনই ফের নতুন করে কর দেওয়ার ঝক্কি এলে সেটা সামাল দেওয়া মুশকিল। তাই ক্ষুদ্র ও মাঝারি করদাতাদের স্বার্থ মাথায় রেখে জিএসটি রিটার্নের সময়সীমা তিন মাস পিছিয়ে দেওয়া হোক।

সেইসঙ্গে উদ্ধব যোগ করেন, ‘অনেক ছোট মাপের কিংবা স্টার্ট আপ সংস্থা ইতিমধ্যে ব্যাংক লোন নিয়ে ফেলেছে। তারা দেশীয় মডেল ব্যবহার করে আত্মনির্ভর ভারতের ধারণাকে ছড়িয়ে দিয়েছে। আজ তারাই কোভিডের নিয়মবিধির জেরে অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়েছে। তাই ব্যাংকগুলির তাদের সমস্যাগুলি সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করা উচিত।’

এর আগে মঙ্গলবার মহারাষ্ট্র সরকার ১৫ দিনের নাইট কার্ফু জারির সিদ্ধান্ত নেয়। নিয়মের কড়াকড়ি আরও আঁটসাঁট করা হয়। কিন্তু তাতেও সংক্রমণের বেগ আটকানো যায়নি। তাই বাধ্য হয়ে মিনি লকডাউনের পরিকল্পনা নিচ্ছে তারা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More