বাগানের আম চুরি, দুই কিশোরকে বেধড়ক মার, গোবর খাওয়ালো রক্ষীরা 

দ্য ওয়াল ব্যুরো : সুগন্ধি আমবাগান অথচ একঝাঁক কচিকাচার দল এসে আমের দিকে গুলতি তাক করবে না এমন ভাবাই অসঙ্গত। বাগান যাঁরই হোক, শিশুরা চিরকাল সেগুলোকে আপন করে নিতেই অভ্যস্ত। ঢিল মেরে অন্যের গাছের আম পাড়া কিংবা ঝড়ের মধ্যে নাস্তানাবুদ হয়ে টপাটপ আম কুড়নোর মধ্যেও যে অনাবিল রোমাঞ্চ আছে তার আস্বাদ নিতান্ত অভাগা ছাড়া সকলেই জানেন।

আম চুরিকে কখনও তেমন ‘চুরি’র আওতায় কোনও বিচারকই ফেলে দেখতে পারবেন না, একথা আগে হলফ করে বলা যেত। কিন্তু তেলেঙ্গানার মাহবুবাদাদে সম্প্রতি আম চুরির যে নজিরবিহীন শাস্তি দেখল দেশবাসী তাতে তাবড় তাবড় বিচারকও চমকে যাবেন। বেধড়ক মারে প্রাণ হারাতে বসেছিল দুই কিশোর। উপরন্তু তাদের জোর করে গোবর খাওয়ানো হয়েছে বলেও অভিযোগ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে এই ভয়াবহ ঘটনাটি দেখা যায়। মাহবুবাদাদের থরুরে একটি আমবাগানে ১৩ এবং ১৬ বছরের দুই কিশোরকে গাছের সঙ্গে পিছমোড়া করে বেঁধে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটান হচ্ছে। অনুমতি ব্যতীত বাগানে ঢোকা এবং আম চুরির অপরাধেই এই শাস্তি। দুই নাবালককে এমন উচিত শিক্ষা দেওয়ার ছিল যে মার খেতে খেতে তারা নেতিয়ে পড়লেও হাল ছেড়ে দেয়নি বি ইয়াক্কু এবং বি রামুলু নামের ওই দুই রক্ষী। কিন্তু এখানেই শেষ নয়। এরপর ছেলেদুটিকে জোর করে কাঁচা গোবর খাওয়ানো হলে তারা অসুস্থ হয়ে পড়ে।

জানাজানি হতে কিশোরদের মৃতপ্রায় অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সারা শরীরে তাদের মারের ক্ষত দগদগে হয়ে ছিল। বিপদ কেটে গেলেও তারা এখনও চিকিৎসাধীন। অভিভাবকরা থানায় অভিযোগ দায়ের করলে উক্ত রক্ষীদের গ্রেফতার করা হয়। কিশোরদ্বয় পুলিশকে জানিয়েছে তারা আদৌ বাগানে ফল পাড়তে যায়নি। অনধিকার প্রবেশ করেছিল ঠিকই, কিন্তু পোষা কুকুরকে খুঁজতে।

ছেলেদের অন্যায়ভাবে বেঁধে রাখা, লাঠিপেটা করা, নিদারুন অবমাননা ও শান্তিভঙ্গ এবং সর্বোপরি  শিশুনির্যাতনের অপরাধে যথাক্রমে ৩৪২, ৩২৪, ৫০৪ এবং ৭৫ নম্বর ধারায় রক্ষীদের বিরুদ্ধে জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্টের অধীনে মামলা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, আমাদের সকলের প্রিয় ক্লাসিক চরিত্র ‘হিংসুটে দৈত্যে’র কথা মনে করা যেতে পারে। তার একার নিস্ফল বাগানে পরবর্তীকালে অবাধে প্রবেশাধিকার পাওয়া শিশুদের সম্বল করেই নতুন জীবন প্রকাশ পেয়েছিল। শিশুরা বাগানে ঢুকে হুড়োহুড়ি করবে, তাদের কলতানে বাতাস মুখরিত হবে তবেই না সেটা এক প্রাণময় সমাপতন!

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More