বিধায়কদের ভয় দেখিয়ে দলত্যাগ করানো হয়েছে, দাবি পুদুচেরির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো : গত সোমবার পুদুচেরিতে আস্থাভোটে হেরে যায় ভি নারায়ণস্বামী সরকার। গত জানুয়ারি থেকে তাঁর সরকারের সংকট শুরু হয়। সব মিলিয়ে সরকারপক্ষের ছ’জন বিধায়ক পদত্যাগ করেন। ফলে সরকার সংখ্যালঘু হয়ে পড়ে। বুধবার পুদুচেরির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ভি নারায়ণস্বামী বলেন, কংগ্রেসের বিধায়কদের ভয় দেখিয়ে দল ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছিল। একটি মহলের অভিযোগ, নারায়ণস্বামীর ওপরে বীতশ্রদ্ধ হয়েই বিধায়করা কংগ্রেস ছেড়েছেন। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সেই অভিযোগ অস্বীকার করেন।

পুদুচেরিতে কংগ্রেসিদের একাংশের অভিযোগ, যোগ্য ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে ভি নারায়ণস্বামীকে মুখ্যমন্ত্রী করা হয়েছিল। ৭৩ বছর বয়সী নারায়ণস্বামী যেভাবে প্রাক্তন লেফটেন্যান্ট জেনারেল কিরণ বেদীর সঙ্গে বার বার বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন, তাও তাঁর দলের একাংশ ভালভাবে নেয়নি। গত সপ্তাহে কিরণ বেদিকে সরিয়ে দেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

এদিন এক বেসরকারি সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় নারায়ণস্বামী বলেন, “বিধায়করা চার বছরের বেশি সময় আমার সঙ্গে কাজ করেছেন। এখন আচমকা তাঁরা আমার নামে নানা অভিযোগ করছেন।” দলত্যাগী বিধায়কদের মধ্যে দু’জন ইতিমধ্যে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। আরও কয়েকজন ওই দলে যোগ দিতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। নারায়ণস্বামী বলেন, তাঁকে ক্ষমতা থেকে সরাতে বিজেপি শুরু করেছিল ‘অপারেশন কমলা’। তিনি বলেন, কংগ্রেস বিধায়কদের ভয় দেখিয়ে দলত্যাগ করানো হয়েছে। তাঁর কাছে এই অভিযোগের প্রমাণ আছে।

নারায়ণস্বামীর কথায়, “এক বিধায়ক আমাকে বলেছিলেন, তাঁকে ২২ কোটি টাকা ট্যাক্স রিটার্ন দিতে হবে। তাঁকে বলা হয়েছে, যদি পদত্যাগ করেন, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে আর মামলা করা হবে না।” প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, কংগ্রেস নেতারা ঐকমত্যের ভিত্তিতে তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী করেছিলেন। তিনি বলেন, “সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী বা প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধী কখনও তাঁকে নেতা নির্বাচনের জন্য হস্তক্ষেপ করেননি। কংগ্রেসের এক প্রতিনিধিদল এসে পুদুচেরিতে দলের সব বিধায়কের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। তাঁদের উপস্থিতিতে বিধায়করা আমাকে নেতা নির্বাচন করেন।”

পুদুচেরিতে ভোটের এখনও কয়েকমাস বাকি আছে। এখন কারা ওই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সরকার গড়বে, তা স্পষ্ট হয়নি। সূত্রের খবর, বিজেপি ও জোটসঙ্গীরা সরকার গড়তে চায় না। আগামী নির্বাচনের আগে পর্যন্ত সেখানে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার প্রস্তাব লেফটেন্যান্ট গভর্নর তামিলিসাই সৌন্দরাজনকে দেওয়া হয়েছে বলে খবর। সূত্রের খবর, সৌন্দরাজন সেই চিঠি মন্ত্রিসভায় পাঠিয়ে দিয়েছেন। বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকেই তা পাশ হয়ে যাওয়ার কথা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More